পুরাণবাজার হরিসভা এলাকায় আবারো ভাঙন


এস এম সোহেল
চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজার হরিসভা এলাকার মোলহেডে শহররক্ষা বাঁধে আবারো ভাঙন দেখা দিয়েছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যার পর থেকে হঠাৎ পুরাণবাজার শহর রক্ষা বাঁধের প্রায় ৪০ মিটার এলাকায় এ ভাঙন দেখা দেয়।
এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক শ্যামল রায়, দুখু ঘোষ, ভুলু ঋিসি, সুভাষ ঋসি, নারায়ন ঘোষের বসতঘর ও সাহাদাত পাটওয়ারীর টং দোকান সরিয়ে নেয়া হয়। হুমকির মুখে রয়েছে বাপ্পি বনিক, শিশির বনিক, বিষু বনিক, দুলাল বনিক, দেবু বনিক, সত্য বনিক, তমাল সাহা ও গোপাল সাহার বসতবাড়ি।
তাৎক্ষণিক ভাঙন রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধানে প্রায় ৩ হাজার বালু ভর্তি জিও টেক্সটাইল বস্তা ফালানো শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে।
এদিকে খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান, পুলিশ সুপার মো. মাহাবুবুর রহমান পিপিএম (বার), জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজেস্ট্রেট মো. জামাল হোসেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হান, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়, সাধারণ সম্পাদক তমাল কুমার ঘোষ, চাঁদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র ছিদ্দিকুর রহমান ঢালী ও কাউন্সিলর মোহাম্মদ আলী মাঝি।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু রায়হান বলেন, মাগরিবের আগে ভাঙন শুরু হয়েছে। ৪০ মিটার এলাকায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। হরিসভা এলাকার পুরো শহর রক্ষা বাঁধ হুমকির মুখে। আমরা ভাঙন রোধে তাৎক্ষণিক বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ফালানো শুরু করেছি। এখন মজুদকৃত ৩ হাজার বস্তা বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ফালানো হবে।
জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান বলেন, আতংকিত হবেন না। জরুরিভিত্তিতে বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং করা হচ্ছে। ভাঙন রোধে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।

১৫ অক্টোবর, ২০১৯।