বড়কুলে কাঁচা রাস্তার কারণে থমকে যাচ্ছে একটি মহতী উদ্যোগ


স্টাফ রিপোর্টার
রাস্তা থাকা সত্বেও সফল হচ্ছে না মহতী উদ্যোগ। এলাকার লোকজন প্রতিদিন যে রাস্তাটি যাতায়াতের জন্য ব্যবহার করছে তা কাঁচা হওয়ায় জনগণের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।
হাজীগঞ্জ উপজেলার ডাকতিয়া নদীর দক্ষিণ পারে বড়কুল ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডে মোল্লাহডর গ্রামে প্রবাসী এক ব্যবসায়ী গ্রামের শিক্ষার উন্নয়নে আধুনিক সুবিধা সম্পন্ন একটি স্কুল নির্মাণ করছে। স্কুলের পাশাপাশি থাকছে মসজিদ, একটি আধুনিক কমপ্লেক্স মার্কেট ও কাাঁচা বাজার। ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তা নুরুর এ উদ্যোগকে এলকার মানুষ সাধুবাদ জানাচ্ছে। এলাকরা মানুষের দাবি বিদ্যালয় নির্মাণ হলেও রাস্তার দূর অবস্থা আগে দূর করতে হবে তা না হলে এ মহতী উদ্যোগ সফলতার মুখ দেখবে না।
এ বিষয়ে এলাকার বাসিন্দা ব্যাংকার আহসান উল্যা, ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার মিজানুর রহমান খোকা, মোঃ মিজানুর রহমান, নেয়ামত উল্যা, হোসনে আরা বেগম, মোহছেনা আক্তার বলেন, আমাদের এলকায় স্কুল, মসজিদ, কাঁচা বাজর ও মার্কেট এক জায়গায় হচ্ছে তা এলাকার জন্য মানুষের জন্য সুবিধা হবে। কারন এক জায়গায় অনেক কিছুর সুবিধা পাব। আমাদের এলাকার প্রবাসী ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর সর্দার নুরু এ উদ্যোগ নিয়েছে কিন্তু দুখের বিষয় এলাকার দেড় কিলোমিটার রাস্তা পুরো পুরো কাঁচা। এখন বর্ষায় এ রাস্তাটি পানিতে ডুবো ডুবো অবস্থায়। রাস্তাটি মেরামত না করলে নুরু ভাইয়ের এ উদ্যোগ কোন কাজে আসবে না। তাই এলাকার এমপি ও উপজেলার চেয়ারম্যান প্রতি দাবি জনাচ্ছি যাতে এ রাস্তাটি ঠিক করে আমাদের ভোগান্তি দূর করা হোক। কারণ এ রাস্তা দিয়ে ৯নং ওয়ার্ডের মোল্লাহডর গ্রামের লোকজন ছাড়াও আরো ৩টি ইউনিয়নের হাজার-হাজার মানুষ প্রতিদিন চলাচল করে।
এ ব্যাপারে প্রবাসী ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তা জাহাঙ্গীর সর্দার নুরু বলেন, আমি মালয়েশিয়াতে ব্যবসা করি। কিন্তু এলাকার জন্য কিছু করবার মন থেকে স্কুল, মসজিদ ও কাঁচা বাজার করবার উদ্যোগ হাতে নেই। এতে এলকার মানুষও আমাকে বেশ অনুপ্রেরণা দিচ্ছে। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয় মোল্লহডর গ্রামের ব্যস্ততম এ রাস্তাটি কাঁচা ও চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় এলাকার লোকজন চলাচলে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এ বিষয়ে চাঁদপুর এলজিডির নির্বাহী প্রকৌশলী শাহাদাত হোসেন ক্যামেরার মুখোমুখি কথা বলতে রাজি হননি।

১১ আগস্ট, ২০১৯।