হাজীগঞ্জ পৌর পরিষদের ৪ বছর পূর্তিতে মতবিনিময়

সমালোচনা করলে কাজের গতি বৃদ্ধি পায়
……মেয়র আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপন



৪ বছরে প্রায় ৪০ কোটি টাকার উন্নয়ন
মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
হাজীগঞ্জ পৌরসভার বর্তমান পরিষদের ৪ বছর পূর্তি উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া এবং সংবাদকর্মী ও সুধীজনদের সাথে মতবিনিময় করেছেন পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপন। গতকাল সোমবার বিকালে পৌর প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে মিলাদ, দোয়া ও মোনাজাত এবং দ্বিতীয় পর্বে সংবাদকর্মী ও সুধীজনদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
শুরুতেই কোরআন তেলাওয়াত ও মিলাদ এবং পৌরবাসীসহ দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন কেন্দ্রিয় বাস টার্মিনাল মসজিদের খতিব ও পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা ফয়সাল আহমেদ। এরপর পৌর সচিব মুহাম্মদ নূর আজম শরীফের পরিচালনায় সভাপতির স্বাগত বক্তব্য রাখেন পৌর মেয়র আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপন।
ভাষা শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে সভাপতির বক্তব্যে পৌর মেয়র আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপন বলেন, গত ১২ ফেব্রুয়ারি ৪ বছর পূর্তি হয়ে ৫ বছরে বর্তমান পরিষদের পদার্পণ করছে। এই ৪ বছরে অসংখ্য সামাজিক ও মানবিক কর্মকান্ডের পাশাপাশি প্রায় ৪০ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে। যা সম্ভব হয়েছে পৌরবাসীর আন্তরিক সহযোগিতার কারনে।
তিনি আল্লাহর শপথ করে বলেন, এই উন্নয়ন কর্মকান্ড এবং পৌরসভার সেবা কার্যক্রম পরিচালনায় আমি হারামের এক টাকাও গ্রহণ করিনি। যেহেতু আমি গ্রহণ করিনি, সেহেতু আমার পরিষদ ও পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও গ্রহণ করার সুযোগ পায়নি এবং আমি সেই সুযোগ দেইনি। কারণ, পৌরবাসীর কাছে যে কমিটমেন্ট (ওয়াদা) আমি দিয়েছি, সেই কমিটমেন্ট অনুযায়ী কাজ করার চেষ্টা করেছি। বিচারের দ্বায়ভার পৌরবাসীর কাছে।
সমালোচনাকারীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপন বলেন, যে কাজ করবে, তার সমালোচনা হবে। যার কাজ নেই, তার সমালোচনা নেই। সুতরাং সমালোচনাকারীদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। তাদের সমালোচনায় আমার কাজের গতি বৃদ্ধি পায় এবং উৎসাহ জোগায়। তাদের সমালোচনায় ভবিষ্যৎ কাজের দিক-নির্দেশনা খুঁজে পাই।
সংবাদকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা (সংবাদকর্মী) আমার আত্মার আত্মীয় এবং কাজের অনুপ্রেরণা। ভুল হলে ধরিয়ে দিবেন। আর ভালো কাজ করলে, তা জনগণের সামনে উপস্থাপন করবেন। আমার পরিষদ এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ দুর্নীতিমুক্ত। এখানে সব কার্যক্রম ডিজিটালাইজড এবং হাতে নয়, আর্থিক লেনদেন ব্যাংকিং কার্যক্রম ও মানি রিসিটের মাধ্যমে পরিচালনা হয়ে থাকে।
সভায় আরো বক্তব্য রাখেন সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ মুন্সী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলী আশ্রাফ দুলাল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বতু, হাজীগঞ্জ সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মাহবুবুল আলম চুন্নু, বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আসফাকুল আলম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক হায়দার পারভেজ সুজন, পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জাকির হোসেন মহন, বিশিষ্ট ঠিকাদার কাজী মনির, ডা. পেয়ারা বিল্লাল ও সংবাদকর্মী পাপ্পু মাহমুদ।
পৌর পরিষদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন প্যানেল মেয়র-২ ও কাউন্সিলর মো. শুকু মিয়া, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন পৌর কর নির্ধারক মো. আবু ইউসুফ ও টিকাদানকারী রিতা রানী দাস। মতবিনিময় সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাব সভাপতি মুন্সী মোহাম্মদ মনির, পৌর কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান, আলাউদ্দিন মুন্সী, রিটন চন্দ্র সাহা, এমরান হোসেন মুন্সী, মুরাদ হোসেন মিরনসহ অতিথিবৃন্দ, সুধী, শিক্ষক, জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকার প্রতিনিধি ও পৌরসভার সব কর্মকর্তা-কর্মচারী।