গ্রামাঞ্চলে শীতের আমেজ লেপ-তোশক তৈরির ধুম

মনিরুল ইসলাম মনির :
মতলব উত্তর উপজেলার ছেংগারচর পৌরসভা ও ১৪টি ইউনিয়নে শীতকে সামনে রেখে শুরু হয়েছে লেপ-তোষক তৈরির কাজ। আর এ কাজে নিয়োজিত প্রায় ২ শতাধিক কর্মচারী ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। এদিকে গত বছরের তুলনায় সবধরনের তুলার দাম বেড়ে যাওয়ায় ক্রেতারা বিপাকে পড়ে গেছেন।
জানা গেছে, ছেংগারচর বাজার, সুজাতপুর বাজার, কালিপুর বাজার, কালীরবাজার, নন্দলালপুর, এখলাছপুর, নতুনবাজার ও নাউরী এলাকায় তৈজষ পত্র প্রস্তুত কারিগররা ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। প্রতিটি দোকানে শত শত লেপ-তোষক তৈরির বায়না পাওয়ায় জোরে সরে চলছে একাজটি। গ্রাম অঞ্চল থেকে লেপ-তোষক তৈরি করতে লোকজন লোকজন দোকানগুলোতে আসছেন। আর সবাই চাইছেন শীত আসার আগেই একটু কমমূল্যে লেপ-তোষক তৈরি করে রাখতে। যদিও বছরের বেশির ভাগ সময় তৈজষ পত্র তৈরিকারকরা অলস সময় কাটান কিন্তু শীতের আগে তাদের কাজের পরিমাণ বহুগুণে বেড়ে যায়।
এদিকে গত বছরের তুলনায় এ বছরও সব ধরনের তুলার দাম বেড়েছে। মতলব উত্তরের বিভিন্ন দোকান ঘুরে দেখা গেছে, কারপাস তুলা ১৫০-১৮০টাকা, বেজার তুলা ৯৫-১০০, শিমুল তুলা ২৩০-২৬০ টাকা গার্মেন্ট তুলা ৭০-৭৫ টাকা, ফম তুলা ৮৫-১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
ছেংগারচর বাজারের দোকান মালিক আয়নাল হক জানান, মোকামে সব ধরনের তুলার দাম বেড়ে যাওয়ায় তাদেরও দাম বাড়াতে হয়েছে। তাছাড়া লেপ-তোষক তৈরির কারিগররা এই মৌসুমে তাদের পারিশ্রমিক তুলানামূলক বেশি নেয়ায় এ বছর লেপ-তোষক তৈরিতে ক্রেতাকে গত বছরের তুলনায় বেশি টাকা গুণতে হচ্ছে।