কল্যাণপুরে আশ্রয়দাতাকে ভূমি ছাড়া করার হুমকি!

স্টাফ রিপোর্টার
চাঁদপুর সদর উপজেলার কল্যাণপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের পশ্চিম কল্যাণদী গ্রামে ভূমিহীন এক পরিবারকে আশ্রয় দিয়ে বিপাকে পড়েছে আশ্রয়দাতা মৃত মুসলিম খানের পরিবার। মৃত মুসলিম খানের বড় ছেলে মৃত আবুল কালামের সরলতার সুযোগে আশ্রয় নেয় ঐ গ্রামের মৃত জয়দুল বেপারীর ছেলে শহীদ বেপারী। এখন সে ঐ আশ্রয়দাতাদেরই ভূমিহীন করার পাঁয়তারা করার অভিযোগ উঠছে।
এখন অভিযুক্ত শহীদ বেপারী তার স্বামী পরিত্যক্তা মেয়ে স্বপ্না (৩০) কে খুঁটি হিসেবে ব্যবহার করে ভূক্তভোগী পরিবারটিকে সামাজিকভাবে হেয় করে আসছে। সম্পত্তির প্রকৃত মালিক সাময়িকভাবে থাকতে দেয়া তাদের সম্পত্তিটি ছেড়ে দেয়ার জন্য বললে আসলরূপ বেরিয়ে আসে শহীদ বেপারী ও তার স্বামী পরিত্যক্তা মেয়ে স্বপ্নার। এলাকার স্থানীয়রা বলছে, স্বপ্না বাবুরহাট এলকায় দীর্ঘদিন ধরে ভাড়া থাকতো। সেখানে নানা অসামাজিক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়লে গাঢাকা দিয়ে এখন পশ্চিম কল্যাণদী গ্রামে স্থায়ী অবস্থান নেয়।
ভুক্তভোগী পরিবারটি বলছে, স্বপ্না তুচ্ছ কোন কিছু হলেই সাধারণ মানুষদের হয়রানি করে থাকে। এমনকি থানা পুলিশকে ম্যানেজ করে সে অনেককেই বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলে দেয়। এমন পরিস্থিতিতে ভুক্তভোগী পরিবারটি স্বপ্নার অত্যাচার থেকে বাঁচতে চায়। এজন্য পরিবারটি তাদের সম্পত্তি বুঝে পাওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে সহযোগিতা আশা করছে।
এদিকে স্বপ্না তার অপর্কমকে কাজে লাগিয়ে মিথ্য তথ্য দিয়ে গত ১৭ সেপ্টেম্বর রাতে ১০টায় চাঁদপুর মডেল থানার এএসআই সাধন ও কনস্টেবলদের খবর দিয়ে আনে। পরে পুলিশ সরেজমিন ঘুরে ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে স্বপ্নার অভিযোগের কোনো সত্যতা পায়নি। পরে পুলিশ চলে যায়।
মৃত কালাম খানের পরিবারের সদস্যরা জানান, ভূমিহীন শহীদ বেপারীকে এলাকার লোকজন আগে থেকেই ভালো জানতো না। তার কোন ভিটেবাড়ি না থাকায় তাকে কেউই আশ্রয় দিতে চায়নি। শহীদ বেপারীর জেঠাতো ভাই দুলাল বেপারীর পীড়াপিড়িতে সাময়িক শর্তসাপেক্ষে শহীদ বেপারীকে থাককে দেয়। মৌখিক ঐ শর্তে বলা ছিলো ২-৩ বছর পর বিকল্প স্থানে চলে যাবে শহীদ বেপারী।
কিন্তু ঐ সময়ে বাংলাদেশ সার্ভে (বিএস) জরিপ রেকর্ড হয়। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে চতুর শহীদ বেপারী তার আশ্রয়ে থাকা মৃত কালাম খানের পরিবারের ৩ শতাংশ ভূমি রেকর্ড করিয়ে নেয়। এমন প্রতারণাকে ব্যবহার করে শহীদ বেপারী স্থায়ীভাবে থেকে যাওয়ার জন্য পাঁয়তারা করে। ঐ পরিবারটির আর্থিক দুর্র্বলতার সুযোগে নিজ সম্পত্তি থেকেই এখন বেদখলের পথে ভুক্তভোগী পরিবারটি।
স্থানীয় সমাজসেবক ও সফরমালী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, কল্যাণপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল আজিজ খান দুদুসহ বেশ কিছু স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ কয়েকবার সালিস দরবার করে শহীদকে তার দখলে থাকা সম্পত্তি ছেড়ে দেয়ার জন্য বলে। কিন্তু সে সেটা না করে উল্টো তার মেয়ে স্বপ্নাকে ব্যবহার করে ভুক্তভোগী পরিবারটিকে হয়রানি করে আসছে।
এদিকে ভুক্তভোগী পরিবারটি তাদের সম্পত্তি ফিরে পাবার জন্য শহীদ বেপারীর নামে ভুলে রের্কডীয় বিএস খতিয়ানের বিরুদ্ধে চাঁদপুর ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইবুনাল আদালতে বিএস সংশোধনী মামলা করলে আদালত মৃত আবুল কালাম পরিবারের পক্ষে রায় দেয়। বর্তমানে বিএস খতিয়ান ভুক্তভোগী পরিবারের নামেই সৃজিত হয়।
শহীদ বেপারীর জেঠাতো ভাই দুলাল বেপারী জানান, আমার মাধ্যমেই আমার চাচাতো ভাই শহীদ বেপারীকে মৃত কালামের জমিতে দুই-তিন বছরের জন্য থাকার ব্যবস্থা করি। কিন্তু শহীদকে কালামদের জমি ছেড়ে দিতে বলছি অনেকবার। সে যাচ্ছে না। এদিকে ভুক্তভোগী পরিবারটিও আর্থিক দুর্বলতার কারণে শহীদ বেপারীর বিরুদ্ধে উচ্ছেদ মামলাও করতে পারছে না।
এমন পরিস্থিতিতি ভুক্তভোগী পরিবারটি জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারের সহযোগিতায় তাদের সম্পত্তি ফিরে পাবার জন্য সহযোগিতা কামনা করছে। সাথে স্বামী পরিত্যক্তা স্বপ্নার অপকর্মের হাত থেকে বাঁচতে চায় ভুক্তভোগীরা।
২৫ নভেম্বর, ২০২০।