গরম আর যানজটে নাকাল চাঁদপুরবাসী

ইলশেপাড় রিপোর্ট
ঈদের পর থেকে চাঁদপুরের বিভিন্ন সড়কে যানজটের চিরচেনা আগের রূপ দেখা যাচ্ছে। প্রতিদিনই শহরের অভ্যন্তরে তীব্র যানজট দেখা যায়। সাথে ভ্যাপসা গরমের প্রভাবে নাকাল এখন চাঁদপুরবাসী।
সরেজমিনে দেখা গেছে, চাঁদপুরের বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ যারা রাজধানীমুখী তারা সিএনজিযোগে শহরে প্রবেশ করেই পরছেন বিপাকে। অধিকাংশ যাত্রীই নির্ধারিত লঞ্চের উদ্দেশ্যে আসলেও শহরের প্রবেশমুখ থেকে পরতে হচ্ছে তীব্র যানজটে। কখনো দীর্ঘ আবার কখনো থেমে থেমে এগোয় সিএনজি। এতে ভোগান্তিসহ নির্ধারিত লঞ্চ মিস করছেন অনেকেই।
অপরদিকে বৃষ্টির দেখা না মেলায় ভ্যাপসা গরমে অস্তির হয়ে পরছে পুরো চাঁদপুরবাসী। সাথে বাড়ছে গ্রামাঞ্চলে প্রচণ্ড লোডশেডিংয়ের যন্ত্রণা। সব মিলিয়ে সর্বসাধারণ এখন গরমে হাপিয়ে উঠছে। এই গরমে ফসলের মাঠেও দেখা দিয়েছে পানিশুন্যতা। ফেটে যাচ্ছে কৃষকের ফসলের মাঠ। মৌসুমী তরকারিসহ অন্যান্য ফলনে বিরুপ প্রভাব পরবে বলে কৃষকরা দাবি করছেন।
গরমে অতিষ্ট হয়ে পরছে ক্ষেতে-খামারে কাজ করা কৃষক ও শ্রমিকরা। পরিবেশে কোন বাতাস না তাকায় তীব্র গরমে শ্রমিকরা পানিশুন্যতায় ভুগছে। শিশুরাও অতিষ্ট হয়ে পরছে। প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘর থেকে বের হচ্ছে না।
এমন গরমে কোন সুখবর দিতে পারেনি জেলা আবহাওয়া অফিসও। অফিসটির কর্মকর্তা শাহ মোহাম্মদ শোয়েব জানান, গতকাল চাঁদপুরে সর্বোচ্চ তাপমাপত্র ছিলো ৩৬ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বনিনিম্ন তাপমাত্রা ছিলো ২৭ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত ২৪ ঘণ্টায় বাতাসের আর্দ্রতা ছিলো ৫৮ দশমিক ৮৫ কেটিএস।
তবে আবহাওয়া অফিসের ভাষ্য- হঠাৎ দমকা হাওয়া অথবা বৃষ্টি হতে পারে। এ মাসের শেষের দিকে সাগরে নিম্নচাপের সম্ভাবনা আছে। কেবল তখনি ভারি কিংবা মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

১৯ মে, ২০২২।