চাঁদপুরে রাস্তার প্রাণিদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করলো উদীচী

চাঁদপুর জেলা উদীচীর সহ-সভাপতি কৃষ্ণা সাহার নেতৃত্বে একদল স্বেচ্ছাসেবী শহরের বিভিন্ন এলাকায় বিড়াল-কুকুরসহ বেওয়ারিশ প্রাণিদের রান্না করা খাবার বিতরণ করেন।

উদীচীর ‘জীবন সুরক্ষা অভিযাত্রা’

স্টাফ রিপোর্টার
লকডাউন ও রমজানের কারণে হোটেল-রেস্তোরাঁগুলো বন্ধ রয়েছে। বিয়ে, জন্মদিনসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানও বন্ধ। ফলে খাবার পাচ্ছে না রাস্তার কুকুরসহ প্রাণিগুলো। অভুক্ত থাকা এসব প্রাণিদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করেছে চাঁদপুর জেলা উদীচী নেতৃবৃন্দ। গত শনিবার (৮ মে) থেকে চাঁদপুরে তারা এ কার্যক্রম শুরু করেছে। নিজেদের অর্থায়নে প্রাণিদের জন্য এ আয়োজন শুরু করে তারা।
রাস্তায় ঘুরে ঘুরে যে প্রাণিগুলো উচ্ছিষ্ট খাবার খেয়ে বেঁচে থাকত, তারা চলমান লকডাউন ও রমজানে পড়েছে খাবারের সংকটে। সেসব প্রাণির জন্য উদীচী’র কর্মকর্তারা গত ৮ মে থেকে বিকেলের পর থেকে খাবার দেয়ার কার্যক্রম পরিচালনা করছে। শনিবার বিকেলে প্রাণিদের জন্য খাবার বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উদীচীর কৃষ্ণা সাহা। তিনিসহ একদল স্বেচ্ছাসেবী শহরের বিভিন্ন এলাকায় বিড়াল-কুকুরসহ বেওয়ারিশ প্রাণিদের রান্না করা খাবার বিতরণ করেন। গতকাল বিকেলেও উদীচী নেতৃবৃন্দ শহরময় ঘুরে-ঘুরে কুকুর-বিড়ালসহ অন্যান্য পশু-পাখিদের মধ্যে খাবার বিতরণ করে।
গত রোববার রাতে খাবার দেয়া কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা উদীচীর সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা বাসুদেব মজুমদার। পরে তাঁর নেতৃত্বে একদল স্বেচ্ছাসেবী শহরের বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে বিড়াল-কুকুরসহ বেওয়ারিশ প্রাণিদের রান্না করা খাবার দিয়ে আসেন। রাত প্রায় ১২টা পর্যন্ত ষোলঘর থেকে বড়স্টেশন পর্যন্ত শহরের বিভিন্ন স্থানে খাবার দেন তারা।
সরেজমিনে দেখা গেছে, বিকেলে বা সন্ধ্যার পরে স্বেচ্ছাসেবীরা খাবার নিয়ে বের হন। কুকুর-বিড়াল দেখলেই খাবার দেন তারা। ঐ খাবার তারা পরিবেশনও করেন ওয়ান টাইম প্লেটে করে। প্রতিদিন নতুন-নতুন প্লেট ব্যবহার করা হয়। কারণ, প্রতিদিনই তাদের খাওয়ার পর প্লেটগুলো নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এছাড়া স্থায়ী প্লেটের ব্যবস্থা করলেও তা’ থাকছে না।

চাঁদপুর জেলা উদীচীর সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা বাসুদেব মজুমদারের নেতৃত্বে একদল স্বেচ্ছাসেবী শহরের মুন্সেফ পাড়ায় কয়েকটি শিশু কুকুরকে রান্না করা খাবার বিতরণ করেন।

উদীচীর সদস্য প্রশিকা সরকার জানান, দিনের বেলা প্রাণিদের জন্য খাবার তৈরি করা হয়। সে খাবারগুলো বিকেলের পরে দেয়া হয়। করোনার কারণে হোটেল-রেস্টুরেন্ট বন্ধ। তাই অভুক্ত থাকছে কুকুরসহ প্রাণিগুলো। না খেতে পেয়ে তারা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। এ দৃশ্য দেখার পর থেকে খাবার দিচ্ছি। প্রতিদিন চাল, ডাল ও মুরগির মাংস রান্না করা হচ্ছে।
তিনি জানান, করোনায় মানুষের সঙ্গে প্রাণিরাও সংকটে পড়েছে। খাবারের দোকান বন্ধ থাকায় অনাহারে থাকছে প্রাণিগুলো। খাবারের জন্য প্রাণিগুলো রাস্তায় ডাকাডাকি করে। তাই এদের খাবার দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছি। কুকুর খাবার না পেলে মানুষের জন্যও হুমকি হতে পারে। ক্ষুধার্ত কুকুর মানুষকে আক্রমণও করতে পারে।
উদীচী’র জাকির হোসেন মিয়াজী জানালেন, তারা এ কার্যক্রমের নাম দিয়েছেন ‘জীবন সুরক্ষা অভিযাত্রা’। তিনি জানালেন, এখন প্রাণিকূল রক্ষায় পথে-পথে আমরা। যে প্রাণি চাইতে পারে না, বলতে পারে না, সেই প্রাণিকূল রক্ষার দায়িত্ব আমাদের। প্রাণিজগৎ বাঁচলে রক্ষা পাবে পরিবেশ। পরিবেশ রক্ষা পেলে বাঁচবে মানুষ, মানুষ বাঁচলে বাঁচাবে পৃথিবী। আসুন নিজেকে সুরক্ষিত করে বাঁচাই পৃথিবী।
তিনি আরো জানান, করোনার ক্রান্তিকালে ২০২০ সাল থেকেই মানুষের হতাশা দূর করে মহান মুক্তিযুদ্ধ ১৯৭১ এর চেতনাকে ধারণ করে মানুষের পাশে মানুষ দাঁড়িয়ে মানুষকে বাঁচাতে সচেতনতামূলক কর্মসূচি, স্বেচ্ছাশ্রমে ১৪,০০০ হ্যান্ড স্যানিটইজার তৈরি ও বিতরণ, ৬শ’ বাড়ি-ঘরে সুরক্ষা জল ছিটানো, শ্রমজীবী মানুষকে ত্রাণ (চাল, ডাল, লবণ, আটা, আলু, পেঁয়াজ, তেল ও সাবান) ১,৪০০ পরিবারের বাড়ি-ঘরে পৌঁছে দেয়া, তৈরী খাবার (খিচুড়ি-ডিম) শ্রমজীবী ক্যান্টিন নামে শ্রমজীবী মানুষের মুখে তুলে দেওয়ার পর দেখা গেলো মানুষ মানুষের পাশে দাঁড়াতে শুরু করছে।
চাঁদপুরের নানা ব্যক্তি ও সংগঠন এখন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু অসহায় এই প্রাণিদের পাশে ২/৪ জন থাকলেও তারা প্রায়ই অভুক্ত থাকছে। যা সত্যিই পীড়াদায়ক। ফলে ক’জনের সহায়তায় প্রাণিদের জীবন রক্ষার্থে সপ্তাহব্যাপী এই কার্যক্রম শুরু হলো। তবে যেসব ব্যক্তি/সংগঠন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন তাদের সবাইকে অভিনন্দন।
উল্লেখ্য, উদীচী জেলা সংসদের উদ্যোগে আয়োজিত প্রাণিদের জন্য ‘জীবন সুরক্ষা অভিযাত্রা’য় স্বেচ্ছাশ্রমে যুক্ত আছেন- মুক্তিযোদ্ধা বাসুদেব মজুমদার, সঙ্গীত শিল্পী কৃষ্ণা সাহা, জাকির হোসেন মিয়াজী, বিপ্লব কর্মকার, জেলা সাধারণ সম্পাদক জহিরউদ্দিন বাবর, প্রণব ঘোষ, মৈত্রী দত্ত, পূজা কর্মকার, অদিতি কর, প্রশিকা সরকার, মো. মোখলেসুর রহমান, নন্দিতা দাসসহ উদীচীর সদস্যবৃন্দ।

১১ মে, ২০২১।