চাঁদপুরে লঞ্চ ঘাটে পুলিশের অভিযানে আটক ২১

শাহ্ আলম খান
চাঁদপুর লঞ্চ ঘাটে যাত্রী হয়রানি রোধে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) স্নিগ্ধা সরকারের নেতৃত্বে অভিযান চালানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় লঞ্চঘাটে যাত্রীদের ব্যাগ টানা-হেচড়া করার সময় ২১ জন সিএনজি স্কুটার ও ব্যাটারীচালিত আটোবাইক চালককে আটক করা হয়েছে।
চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) বলেন, আপনাদের ১৫ দিন আগে বলা হয়েছিল প্যান্ট-শার্ট পরে গাড়ি চালাবেন, কোন যাত্রীকে হয়রানি করবেন না। আপনারা ১৫ দিনের সময় নিয়েছিলেন । আমরাও আপনাদের কথার উপর ১৫ দিনের সময় বেঁধে দিয়েছিলাম। কিন্তু আপনারা এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেননি। আপনারা লুঙ্গি পরে গাড়ি চালাচ্ছেন। এখনো আপনারা যাত্রীদের ব্যাগ নিয়ে টানাটানি করছেন। আপনাদের গাড়ির কোন সিরিয়াল নেই। যে যে নির্দেশনা আপনাদের দেওয়া হয়েছিল সে নির্দেশনা জারি থাকবে। আশাকরি আপনারা সেই নির্দেশনা মোতাবেক চলবেন। আপনারা যাত্রীদের হয়রানি করবেন না। যারা যাত্রীদের হয়রানি করবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। কোনভাবেই তাদের ছাড় দেয়া হবে না।
অভিযান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার স্নিগ্ধা সরকার বলেন, অনেক অভিযোগ আমাদের কাছে এসেছে। যেজন্য আজ এই বিশেষ সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। লঞ্চঘাটে যাত্রীদের হয়রানি করা হচ্ছে। সিএনজি ড্রাইভার যারা আছে তারা যাত্রীদের সাথে হাল্লা করে। যাত্রীদের জিনিসপত্র টানাটানি করে এবং রিসিট ছাড়া অনেক চাঁদা আদায় করে। আমরা ২০/২৫ দিন আগে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে সভা করেছিলাম। সিএনজি ড্রাইভার থেকে শুরু করে বিআইডব্লিউটিএ, ইজারাদার, এলাকার গণ্যমান্য লোকজনকে নিয়ে। আমরা তাদের কিছু নির্দেশনা দিয়েছিলাম- ড্রাইভাররা প্যান্ট-শার্ট পড়বে, ইজারাদার নির্দিষ্ট জায়গা থেকে ইজারা সংগ্রহ করবেন- কিন্তুু তারা সেটা মানেনি। আমরা ইজারাদারকে ৭ দিনের সময় দিয়েছি। ৭ দিন পর আমরা অভিযান করবো, কিন্তুু তারা ১৫ দিনের সময় নিয়েছে। তারা তাদের সে আচরণ বজায় রেখেছে। কোন নিয়ম-নীতি মেনে চলে না। সেজন্য আজ এই অভিযান। এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।
অভিযানে সহযোগিতায় ছিলেন চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নাসিম উদ্দীন, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হারুনুর রশীদ, পুরাণবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. জাহাঙ্গির আলম, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক অনুপ চক্রবর্তী, মডেল থানার উপ-পরিদর্শক রাশেদুজ্জামান, এএসআই হানিফসহ পুলিশ সদস্যরা।

২৬ নভেম্বর, ২০২০।