চাঁদপুরে সদর হাসপাতালে স্থাপন হচ্ছে অক্সিজেন জেনারেটর প্লান্ট

এস এম সোহেল
চাঁদপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট সরকারি জেনারেল হাসপাতালে অক্সিজেন জেনারেটর প্লান্ট স্থাপনের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। এসএস সায়েন্টিফিক কর্পোরেশন ও সিএমএসডি কর্তৃক অক্সিজেন জেনারেটর প্লান্ট আমদানি করা হয়েছে। সারাদেশের মধ্যে ৬০টি হাসপাতালে এ প্লান্টের কাজ চলছে। তার মধ্যে চাঁদপুরে একটি। প্লান্টের মাধ্যমে প্রতি ঘণ্টায় ৫শ’ লিটার গ্যাস উৎপাদন করা যাবে। যা ২৪ ঘণ্টা সেবা চালু থাকবে। কাজের তদারকিতে রয়েছে এনএসআই। চলতি মাসের মধ্যে চলমান কাজ সমাপ্ত হবে বলে জানিয়েছেন এসএস সায়েন্টিফিক কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চাঁদপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট সরকারি জেনারেল হাসপাতালের চারতলা বিশিষ্ট নতুন ভবনের পিছনে ৮ ফিট উচ্চতা বিশিষ্ট আরসিসি কলাম করে ছাদ দিয়ে তার উপরে টিন শেড রুম তৈরি করে অক্সিজেন জেনারেটর প্লান্ট স্থাপনের জন্য ৫৪০ বর্গফুট জায়গা স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। ভবন নির্মাণ এবং জেনারেটর স্থাপন করতে চলতি মাসের শেষ পর্যন্ত সময় লাগতে পারে।
২৫০ শয্যাবিশিষ্ট চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে অক্সিজেন জেনারেটর প্লান্ট ছাড়াও একটি অক্সিজেন প্ল্যান্ট রয়েছে। অক্সিজেন প্লান্টটি বসানোর কাজে অর্থায়ন করছে ইউনাইটেড ন্যাশন ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেন্স ইমার্জেন্সি ফান্ড (ইউনিসেফ) এবং বাস্তবায়ন করছে সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।
এসএস সায়েন্টিফিক কর্পোরেশনেরর সিনিয়র এক্সিকিউটিভ মো. বাকি বিল্লাহ জানান, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে কেন্দ্রিয় ঔষধাগার থেকে বাংলাদেশের ৬০টি হাসপাতালে অক্সিজেন জেনারেটর প্লান্ট স্থাপন করা হচ্ছে। তার মধ্যে চাঁদপুরে একটি স্থাপন করা হচ্ছে। চাঁদপুরের কাজ প্রায় ৭০ ভাগ শেষ হয়ে গেছে। বাকি ৩০ ভাগ কাজ চলতি ডিসেম্বরের মধ্যেই শেষ হবে।
এ বিষয়ে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের আরএমও ডা. এএইচএম সুজাউদ্দৌলা রুবেল জানান, নিয়মিত কাজের তদারকি করা হচ্ছে। অক্সিজেন জেনারেটর প্লান্টটি স্থাপন হলে হাসপাতালে আর অক্সিজেন সংকট হবে না।

১৪ ডিসেম্বর, ২০২১।