পুরানবাজার দোকানঘরে ছুরিকাঘাতে কাঠমিস্ত্রি নিহত


স্টাফ রিপোর্টার
চাঁদপুর শহরের পুরানবাজারে অটোযাত্রী উঠানো নিয়ে ছুড়িকাঘাতে দোকানঘর এলাকায় রহমান গাজী (৩৫) নামে এক কাঠ মিস্ত্রি নিহত হয়েছে। ঘটানাটি ঘটেছে গত ৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় দোকানঘর এলাকায় নাজিরের দোকানের সামনে। ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় জানাজা শেষে নিহত রহমান গাজীকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। জানাজার নামাজে ইমামতি করেন নিহত রহমান গাজীর ৯ বছরের ছেলে শান্ত গাজী। এ ঘটনায় ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
জানা গেছে, গত মঙ্গলবার বিকালে দোকানঘর এলাকার নাজিরের চায়ের দোকানের সামনে অটো ড্রাইভার আলমগীর ও তাফুর মধ্যে অটোতে যাত্রী উঠানো নিয়ে বাকবিতন্ডা হয়। এর জের ধরে তাফু ঐ দিন সন্ধ্যায় প্রায় ১৫ থেকে ১৬ জন সন্ত্রাসী নিয়ে অস্ত্রসস্ত্র সহকারে অটো ড্রাইভার আলমগীরের উপর হামলা চালায়। এই সময় কাঠমিস্ত্রি রহমান গাজী দোকানে কাজ করতে ছিলো। হট্টোগল দেখে সে দোকান থেকে বেরিয়ে দু’পক্ষকে থামাতে গেলে তাফুর বাহিনী ছোড়ার আঘাত রহমান গাজীর পেটে আঘাত প্রাপ্ত হয়।
পরে গুরুতর অবস্থায় রহমান গাজীকে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে প্রেরন করে। শুক্রবার ভোরে ২ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর রহমান গাজী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান।
এ ব্যাপারে রহমান গাজীর ভাই জাহাঙ্গীর জানান, আমার ভাই একজন নিরীহ মানুষ। সে কাঠমিস্ত্রির কাজ করে। ঐ দিন ঝগড়া দেখে সে উভয় পক্ষকে থামাতে গিয়ছিলেন। তাফুর সাথে আসা সন্ত্রাসীরা আমার ভাই পেটে ছুড়ি ঢুকিয়ে দেয়। ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে শুক্রবার মারা যায়। এ ব্যপারে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার প্রেক্ষিতে ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
এদিকে সংসারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তিকে হারিয়ে রহমানের পরিবারে চলছে শোকের মাতম। রহমানের ১ মেয়ে ও ১ ছেলে।
এ ব্যাপারে চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. নাসিম উদ্দিন জানান, ঘটনা প্রথমে পুলিশকে কেউ জানায়নি। পরে মামলা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতার করা হবে।