হাজীগঞ্জের মহিনের লাশ দেশে আনতে সরকারের কাছে পরিবারের আবেদন

আবুধাবিতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের বাড়িতে শোকের মাতম
মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবিতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হাজীগঞ্জের মো. মহিন উদ্দিন (২৪) বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। নিহতের নববধূসহ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারে কান্না যেন থামছেই না। তার মরদেহ দেশে আনার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সরকারের কাছে সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছে নিহতের পরিবার। মহিন হাজীগঞ্জ উপজেলার গন্ধর্ব্যপুর উত্তর ইউনিয়নের আহাম্মদপুর গ্রামের আস্কর বাড়ির সফি উল্যার ছেলে।
এর আগে বাংলাদেশ সময় গত রোববার দিবাগত রাত আনুমানিক সাড়ে ১১টার দিকে আবুধাবির আবু সাকারা নামক এলাকায় প্রাইভেটকার দুর্ঘটনায় মহিন উদ্দিন মারা যান। এ দিন রাতে কাজের স্থল থেকে নিজ বাসায় ফেরার পথে দুর্ঘটনার শিকার হয় সে। মহিন আবুধাবিতে ফার্নিচার ও পর্দার কাপড় সাপ্লাইয়ের কাজ করতেন বলে জানা গেছে। সম্প্রতি সে ছুটিতে এসে বিয়ে করে জীবিকার তাগিদে দ্বিতীয়বার আবুধাবিতে গিয়েছিলেন।
নিহত মহিন উদ্দিনের বাবা সফি উল্যাহ জানান, জীবিকার তাগিদে এবং একটু ভালো থাকা-খাওয়ার আশায় ছেলেকে বিয়ে করিয়ে বিদেশ (আবুধাবি) পাঠিয়েছি। তার ভাগ্য এমন হবে ভাবতেও পারিনি। দুর্ঘটনার পরপরই আমরা সহকর্মীদের মাধ্যমে মহিনের মৃত্যুর খবর পেয়েছি। তিনি কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, শুধু ছেলের লাশটা চাই। এজন্য তিনি সরকারের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।
এদিকে স্থানীয় মীর হোসেন জানান, মহিন উদ্দিনরা ৩ ভাই ও ৪ বোন। সে শান্ত এবং অত্যন্ত ভদ্র ছিল। তার মৃত্যুর খবরে পরিবার ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। তিনি সদ্য বিবাহিত এই তরুণের অকাল মৃত্যুতে তার পরিবারকে রাষ্ট্রীয়ভাবে আর্থিক সহযোগিতা এবং তার মরদেহ দেশে আনার অনুরোধ জানান।
১৭ আগস্ট, ২০২১।