হাজীগঞ্জে আবারো শুরু হয়েছে গণটিকা কার্যক্রম

মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
মহামারি করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সারা দেশের মতো হাজীগঞ্জে আবারো শুরু হয়েছে গণটিকা কার্যক্রম। সোমবার (১২ জুলাই) হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিনের তৈরি সিনোফার্মের এই টিকার প্রথম ডোজ ১০৮ জন গ্রহণ করেছেন। দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হবে ২৮দিন পর। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত নিবন্ধিত মোবাইলে ম্যাসেজ পাওয়া ব্যক্তিরাই প্রথম ডোজ টিকা নিতে পারবেন। এর আগে ২ হাজার ডোজ সিনোফার্মের টিকা হাজীগঞ্জে এসে পৌঁছে।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, এর আগে নিবন্ধিতদের মধ্যে হাজীগঞ্জে ৯ হাজার ২৪০ জন অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার প্রথম ডোজ গ্রহণ করে। এর মধ্যে ৭ হাজার ৫০ জন দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহণ করে। পরবর্তীতে সরকারিভাবে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার মজুদ শেষ হয়ে যাওয়ার কারনে ২ হাজার ১৯০ জন দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহণ করতে পারেনি। যার ফলে গত তিনমাস টিকা কার্যক্রম বন্ধ ছিল। এখন নতুন করে সিনোফার্মের টিকা আসায় হাজীগঞ্জে আবারো টিকা দান কার্যক্রম শুরু হয়েছে।
উল্লেখ্য, সম্প্রতি সরকার চীনের কাছ থেকে দেড় কোটি ডোজ সিনোফার্মের টিকা ক্রয় করেছে। ইতিমধ্যে ২০ লাখ ডোজ টিকা এসে পৌঁছেছে। এছাড়া উপহার হিসেবে চীনের কাছ থেকে সিনোফার্মের ১১ লাখ ডোজ টিকা পেয়েছে। আবার কোভ্যাক্সের আওতায় ফাইজারের এক লাখ ডোজ এবং মর্ডানার ২৫ লাখ ডোজ টিকা পাওয়া গেছে। সব মিলে দেশে মোট টিকার মজুদ ৫৮ লাখ ৫৪ হাজারের চেয়ে কিছু বেশি।
আবার চিন থেকে ক্রয়কৃত সিনোফার্মের টিকা ধারাবাহিকভাবে দেশে আসবে। তাই সরকার দেশে সোমবার (১২ জুলাই) থেকে গণটিকা কার্যক্রম শুরু করেছে। এই টিকা দেয়ার জন্য আগের মতই সুরক্ষা অ্যাপের মাধ্যমে শহর-গ্রাম নির্বিশেষে ৩৫ বছরের বেশি বাংলাদেশি যেকোন নাগরিক করোনাভাইরাস প্রতিরোধে টিকা নিতে পারবেন। নিবন্ধনের পর এসএমএস দেয়া হবে এবং তারপর নির্দিষ্ট দিনে নির্দিষ্ট কেন্দ্রে গিয়ে টিকা নিতে হবে। এবং একমাস পর দ্বিতীয় ডোজ দিতে পারবেন।
জানা গেছে, টিকা গ্রহণের জন্য সুরক্ষা এ্যাপে যারা নতুন করে নিবন্ধণ করেছেন এবং একইসঙ্গে যারা এর আগে রেজিস্ট্রেশন করেও টিকা নিতে পারেননি, তারাও সিনোফার্মের টিকা নিতে পারবেন। এ ছাড়াও যারা প্রবাসী শ্রমিক রয়েছেন এবং যেসব দেশে সিনোফার্মের টিকা অনুমোদিত তারাও সিনোফার্মের টিকা নিয়ে বিদেশ যেতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে মোবাইলে ম্যাসেজ আসা ব্যক্তিরাই টিকা গ্রহণ করতে পারবেন।
তবে সরকারিভাবে জানানো হয়েছে, যারা আগেরবার টিকার জন্য নিবন্ধন করেও টিকা নিতে পারেননি, এবার তাদেরকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দেয়া হবে। প্রবাসীদের মধ্যে সৌদিআরব ও কুয়েতসহ যেসব দেশে সিনোফার্মের টিকার অনুমোদন জটিলতা রয়েছে, তাদেরই ফাইজারের টিকা দেওয়া হবে। সরকার তাদের জন্য রাজধানীর বেশ কয়েকটি হাসপাতালে এই টিকা গ্রহণের ব্যবস্থা করেছেন।
১৩ জুলাই, ২০২১।