হাজীগঞ্জ পৌর নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু

ভোটকেন্দ্র পরিদর্শন করলেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা

মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
হাজীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে পৌর এলাকার ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. তোফায়েল হোসেন। বুধবার (১১ নভেম্বর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত পৌরসভার ভোট কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করেন তিনি। এ সময় উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ওবায়েদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নির্বাচন কমিশন সব প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। ভোটার তালিকা প্রকাশের জন্য ইতোমধ্যে নতুন করে ভোটার হওয়ার কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে এবং ভোট কেন্দ্রের তালিকা সম্পন্ন করার লক্ষ্যে কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করছেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা।
জানা গেছে, হাজীগঞ্জ পৌরসভার ১২টি ওয়ার্ডে ২০টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। এর মধ্যে ৬টি একক পুরুষ কেন্দ্র, ৬টি একক নারী কেন্দ্র এবং ৮টি যৌথ পুরুষ ও নারী ভোট কেন্দ্র। আবার এই ২০টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ১২৮টি ভোট কক্ষ রয়েছে। যে কক্ষগুলোতে ভোটগ্রহণ করা হবে। তবে অস্থায়ী ভোট কেন্দ্র না থাকলেও ১০টি অস্থায়ী ভোট কক্ষ রয়েছে।
সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী (মার্চ-২০২০) বর্তমানে হাজীগঞ্জ পৌরসভা ৪৬ হাজার ৫ জন ভোটার রয়েছেন। এর মধ্যে ২৩ হাজার ৩৫১ জন পুরুষ ও ২২ হাজার ৬৫৪ জন নারী ভোটার। এর সাথে গত মার্চ থেকে চলতি মাসের ৪ তারিখ পর্যন্ত যারা ভোটার হয়েছেন নির্বাচনের আগে তাদেরসহ নতুন করে ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে।
নির্বাচন কমিশন থেকে গত ২৭ অক্টোবর প্রকাশিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তি (স্মারক নং-১৭.০০.০০০০.০৪০.১৭.০১৬.১৯-২১৪) সূত্রে জানা গেছে, ২০২১ সালের প্রথম দিকে যেসব পৌরসভার মেয়াদ উত্তীর্ণ হবে, সেসব পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে।
নির্বাচন কমিশন সূত্রে আরো জানা গেছে, দেশের অন্যান্য পৌরসভার সাথে চলতি মাসে (নভেম্বর) পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করার সম্ভাবনা রয়েছে। যদি চলতি মাসে তফসিল ঘোষণা করা হয়, তাহলে ডিসেম্বর মাসে ভোটগ্রহণ আর ডিসেম্বর মাসে তফসিল ঘোষণা করা হলে আগামি বছরের (২০২১ খ্রিস্টাব্দ) জানুয়ারি মাসে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তি সূত্রে আরো জানা যায়, করোনাভাইরাসের এই মহামারিকালীন সময়েও নির্বাচন পেছানো হবে না। কারণ, স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন- ২০০৯ এর ২০ (২) ধারা অনুযায়ী পৌরসভার মেয়াদ শেষ হওয়ার পূর্ববর্তী ৯০ দিনে অর্থাৎ মেয়াদ শেষ হওয়ার আগের ৯০ দিনের মধ্যে নতুন করে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার বিধান রয়েছে।
এদিকে নির্বাচনকে সামনে রেখে এক ডজন সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ ব্যানার ও ফেস্টুনের মাধ্যমে তাদের প্রার্থীতা ঘোষণা দিয়েছেন। ইতোমধ্যে অনেক প্রার্থী দলীয় নেতা-কর্মীসহ ভোটারদের সাথে মতবিনিময় ও গণসংযোগ শুরু করেছেন।

১২ নভেম্বর, ২০২০।