‘৩২ জানালা’ মঞ্চ নাটকের কারিগরী প্রদর্শনী সম্পন্ন

স্টাফ রিপোর্টার
হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি’র উদ্যোগে ৬৪ জেলায় বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে মঞ্চ নাটক নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমি’র আয়োজনে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের নির্মম হত্যাকাণ্ড নিয়ে ৩৫ জানালা মঞ্চ নাটক নির্মাণে দীর্ঘ ২ মাস ১৭ দিন মহড়া শেষে মঞ্চায়ন উপযোগী করে তোলা হয়।
বাংলাদেশের খ্যাতিমান নাট্যকার, চাঁদপুরের কৃতী সন্তান রূপক রায় রচিত এবং শহীদ পাটোয়ারী নির্দেশিত ৩২ জানালা নাটকের চূড়ান্ত মহড়া শেষে কারিগরী প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। গত ২৭ জুন সন্ধ্যা ৬টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি, চাঁদপুরের মঞ্চে কোনো প্রকার আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই দর্শকবিহীন ৩২ জানালা নাটকের কারিগরী প্রদর্শনী সম্পন্ন হয়। যদিও ৩২ জানালা নাটকটি’র প্রথম মঞ্চায়ন উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার (২৯ জুন) সন্ধ্যা ৭টায় ভার্চুয়ালিভাবে উদ্বোধন করার কথা ছিলো শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি’র। কিন্তু হঠাৎ করে করোনাভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সারাদেশের মতো চাঁদপুরেও সকল কর্মকাণ্ড স্থবির হয়ে যায়। সে কারণে দর্শকদের নিয়ে আয়োজিত ৩২ জানালার প্রদর্শনী আপাতত স্থগিত রাখা হয়। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে স্বল্প সময়ের প্রস্তুতি নিয়ে ৩২ জানালা নাটকটি’র দু’টি প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে।
১ ঘণ্টা ২২ মিনিটের ৩২ জানালা মঞ্চ নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেনঃ চন্দন সরকার (বঙ্গবন্ধুর চরিত্র), শরীফ চৌধুরী (কর্নেল ফারুক), এমএ কুদ্দুছ রোকন (মেজর রশিদ), মাসুদুর রহমান মাছুম (মেজর ডালিম), গোবিন্দ মণ্ডল (ভাস্কর্য শিল্পী ও মুক্তিযোদ্ধা), প্রনব ঘোষ (খন্দকার মোস্তাক), দেবব্রত সরকার বিজয় (তাহের উদ্দিন ঠাকুর), ফাতেমাতুজ জোহরা (ভাস্কর্য শিল্পী’র সহকারী), শরীফুল ইসলাম (ভাস্কর্য শিল্পী’র সহকারী), মুহাম্মদ আলমগীর (ভাস্কর্য-১), সিয়াম খান (ভাস্কর্য-২), হৃদয় কর্মকার (ভাস্কর্য-৩), ফাতেমা জেরিন (ভাস্কর্য-৪), নূরে আলম নয়ন (অন্ধ পীর), গৌতম দাস (মেজর হুদা), সাদ্দাম হোসেন (মেজর নূর), বীরেন সাহা (মেজর মোসলে উদ্দিন), হারুনুর রশিদ ডাক্তার (এমপি-১), তাফাজ্জল হোসেন তাফু (এমপি-২), কামরুল ইসলাম (থানার ওসি), মো. সবুজ (চাটুকার-১), তাফাজ্জল হোসেন (চাটুকার-২), মোখলেছুর রহমান (নজু কাকা, বঙ্গবন্ধু’র সহচর), নূরে আলম নয়ন (সেনা সদস্য-১), গৌতম দাস (সেনা সদস্য-২), বীরেন সাহা (পুলিশ কর্মকর্তা-১), সাদ্দাম হোসেন (পুলিশ কর্মকর্তা-২), মো. সবুজ (আর্টিলারি সদস্য-১), আনাচ ইবনে আলমগীর (আর্টিলারি সদস্য-২), মাহিদুর রহমান (আর্টিলারি সদস্য-৩), যোবায়ের আহমেদ (আর্টিলারি সদস্য-৪), কুহু (নৃত্যশিল্পী)।
এছাড়া নির্দেশনা উপদেষ্টা ও সেট পরিকল্পনায়ঃ শরীফ চৌধুরী, প্রধান সমন্বয়কারী : মোহাম্মদ আয়াজ মাবুদ (জেলা কালচারাল অফিসার, চাঁদপুর), সমন্বয়কারী : মৃণাল সরকার, এমআর ইসলাম বাবু, আলো পরিকল্পনা ও নিয়ন্ত্রণে : শুকদেব রায়, মিউজিক পরিকল্পকনা ও নিয়ন্ত্রণে : এমআর ইসলাম বাবু, কস্টিউম ডিজাইন : গোবিন্দ মণ্ডল, রূপসজ্জায় : ফাতেমা জেরিন, সার্বিক তত্ত্বাবধানে : জসীম মেহেদী, নূরে আলম নয়ন ও প্রণব ঘোষ।

৩০ জুন, ২০২১।