শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় শেষ বিদায় নিলেন অধ্যাপক আ. রশিদ মজুমদার

শিক্ষামন্ত্রী, সাংসদ, উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়রসহ বিভিন্ন মহলের শোক

মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
হাজীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ ও পৌরসভার সাবেক দুই দুইবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান, শিক্ষাবিদ ও রাজনীতিবিদ অধ্যাপক আবদুর রশিদ মজুমদার দলমত নির্বিশেষে হাজারো মানুষের শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় শেষ বিদায় নিলেন। মঙ্গলবার (১৭ মে) বিকালে দুই দফা জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়।
এ দিন বিকালে হাজীগঞ্জ ঐতিহাসিক বড় মসজিদে মরহুম অধ্যাপক আব্দুর রশিদ মজুমদারের প্রথম জানাযায় দলমত নির্বিশেষে প্রায় পনের হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করে। এরপর মরহুমের নিজ বাড়ি পৌরসভাধীন ৪নং ওয়ার্ড মকিমাবাদ গ্রামের মজুমদার বাড়ি জামে মসজিদে দ্বিতীয় জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।
এর আগে সোমবার দিবাগত রাত ১২ টা ৪৫ মিনিটে অধ্যাপক আবদুর রশিদ মজুমদার নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। তিনি হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন ৪নং ওয়ার্ড মজুমদার বাড়ির মরহুম আব্দুল মতিন মজুমদারের ছেলে। মৃত্যুকালে তিনি ১ ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
অধ্যাপক আব্দুর রশিদ মজুমদার হাজীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের দুইবার এবং হাজীগঞ্জ পৌরসভায় দুইবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া তিনি হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে শিক্ষকতার পাশাপাশি উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্বাচিত সভাপতি হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।
তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ও চাঁদপুর-৩ (চাঁদপুর সদর ও হাইমচর) নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য ডা. দীপু মনি এবং চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তি) নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম।
এছাড়া শোক জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, হাজীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী মাইনুদ্দিন, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র অ্যাড. জিল্লুর রহমান জুয়েল, হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাশেদুল ইসলামসহ দলীয় ও বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
এ দিন বিকালে হাজীগঞ্জ ঐতিহাসিক বড় মসজিদে প্রথম জানাযার আগে ও পরে মরহুমের স্মৃতিচারণ করে টেলিকনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক নেতা অধ্যাপক একেএম ফজলুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. নাছির উদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল।
স্মৃতিচারণ করেন চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র অ্যাড. জিল্লুর রহমান জুয়েল, হাজীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী মাইনুদ্দিন, হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আ.স.ম মাহবুব-উল আলম লিপন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাশেদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ রোটা. আহসান হাবীব অরুন, হাজীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ হেলাল উদ্দিন মিয়াজী ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক মুরাদ।
হাজীগঞ্জ পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ সৈয়দ আহম্মদ খসরুর উপস্থাপনায় এসময় স্মৃতিচারণ করে আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু ইউছুফ গাজী মোহন, পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাব্বিসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ।
এরপর মরহুমের কফিনে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সাংসদ মেজর অব. রফিকুল ইসলামের পক্ষে নেতৃবৃন্দ, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক অধ্যাপক একেএম ফজলুল হক, জেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, ইঞ্জি. মোহাম্মদ হোসাইনের পক্ষে নেতৃবৃন্দ, উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসন, পৌরসভা, হাজীগঞ্জ উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, শ্রমিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ, হাজীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ।
এছাড়া প্রেসক্লাব, সাংবাদিক কল্যাণ সমিতি, হাজীগঞ্জ সদর ইউনিয়ন পরিষদ, রোটারী ক্লাব অব হাজীগঞ্জ, রোটার‌্যাক্ট ক্লাব অব হাজীগঞ্জ, সবুজ সংঘ, বনফুল সংঘ, প্রচেষ্টা, হোটেল-রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি, প্রাক্তন ফুটবল খেলোয়াড় সংঘ, আমিন মেমোরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, আলীগঞ্জ হাই স্কুল, পৌর শ্মশান কমিটিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।
উল্লেখ্য, অধ্যাপক আবদুর রশিদ মজুমদার দীর্ঘদিন যাবৎ কিডনী রোগে আক্রান্ত হয়ে নিয়মিত ডায়ালাইসিস করতেন। গত দুই বছর তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের অধীনে বাড়িতেই চিকিৎসাধীন ছিলেন। সম্প্রতি তার শ^াসকষ্ট বেড়ে যায়। এরপর সোমবার দিবাগত রাতে তিনি নিজ বাড়িতে মারা যান। তাঁর আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া কামনা করেন মরহুমের একমাত্র ছেলে আতাউর রহমান অপু।

১৭ মে, ২০২২।