সড়ক দুর্ঘটনায় হাজীগঞ্জের দু’পরীক্ষার্থীর শিক্ষক হওয়ার স্বপ্ন শেষ

নিয়োগ পরীক্ষা দিতে গিয়ে নিহত আব্দুল্লাহ ও ফাতেমা

মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
চাঁদপুরে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা দিতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন আব্দুল্লাহ পাটওয়ারী ও ফাতেমা আলম নামের হাজীগঞ্জের দুই পরীক্ষার্থী। শুক্রবার (২০ মে) সকালে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের ঘোষেরহাট এলাকায় সিএনজিচালিত স্কুটার ও পিকআপের মধ্যে দুর্ঘটনায় তারা মারা যান।
নিহত আবদুল্লাহ্ পাটোয়ারী হাজীগঞ্জ উপজেলার কালচোঁ দক্ষিণ ইউনিয়নের ওড়পুর-নোয়াপাড়া গ্রামের পাটওয়ারী বাড়ির হোসেন পাটওয়ারীর ছেলে এবং অপর নিহত ফাতেমা আলম একই উপজেলার দ্বাদশগ্রাম ইউনিয়নের নাসিরকোট গ্রামের মিজি বাড়ির মো. মাহবুবুল আলমের মেয়ে।
জানা গেছে, হাজীগঞ্জ থেকে আব্দুল্লাহ পাটোয়ারী ও ফাতেমা আলমসহ পাঁচজন পরীক্ষার্থী সিএনজিচালিত স্কুটারযোগে চাঁদপুরে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা দিতে যান। এ সময় চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের ঘোষেরহাট এলাকায় একটি পিকআপ স্কুটারটিকে চাপা দেয়।
এতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারায় ফাতেমা আলম এবং আব্দুল্লাহ পাটওয়ারী গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয় ও এলাকাবাসী স্কুটারের অপর ৪ যাত্রীকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আব্দুল্লাহ পাটওয়ারী মারা যান।
নিহত ফাতেমা আলমের পরীক্ষা কেন্দ্র ছিল চাঁদপুর আল আমিন স্কুল এন্ড কলেজ এবং আব্দুল্লাহ পাটওয়ারীর পরীক্ষা কেন্দ্র ছিল বাবুরহাট হাই স্কুল এন্ড কলেজ। এদিকে এদিন বিকালে আব্দুল্লাহ পাটওয়ারীর এবং ফাতেমা আলমে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।
এদিকে দুর্ঘটনার পরই পিকআপ ও স্কুটারের চালক পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানার এসআই মোতালেব ও কবির হোসেন নিহতের মরদেহ উদ্ধার ও দুর্ঘটনা কবলিত পিকআপ ও স্কুটারটি জব্দ থানায় নিয়ে আসে।
নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুর রশিদ জানান, নিহতদের পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় এবং তাদের লিখিত আবেদনের ভিত্তিতে ময়নাতদন্ত ছাড়া মরদেহ স্ব-স্ব পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

২০ মে, ২০২২।