ফরিদগঞ্জে গরু চোরচক্রের দুই সদস্য আটক

পিকআপ জব্দ, গরু উদ্ধার

নারায়ন রবিদাস
ফরিদগঞ্জে সংঘবদ্ধ একটি চোরচক্র ৫টি গরু চুরি করে পিকআপে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় জনতা ও একটি প্রাইভেট কার চালক ধাওয়া করে গরু চোরচক্রের দুই সদস্যকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। এসময় চোর চক্রের পিকআপ চাপায় প্রাইভেট কার চালক আ. মান্নান আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
অপরদিকে চোরচক্রের গরু বোঝাই পিকআপ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাঁদপুর-ল²ীপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের দক্ষিণ ধানুয়া এলাকায় ৩৩ কেভি লাইনের বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে নিচে পড়ে যাওয়ার ফলে ফরিদগঞ্জ এবং হাইমচর উপজেলার বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুরো উপজেলা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এ ঘটনায় ফরিদগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
জানা গেছে, গত মঙ্গলবার গভীর রাতে উপজেলার গোবিন্দপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের লোকমান হোসেন রাড়ীর ৪টি গরু এবং ফরিদগঞ্জ পৌরসভার চরকুমিরা গ্রামের আ. হান্নান কালু সৈয়ালের একটি গরু চুরি করে পালিয়ে যাবার সময় কালু সৈয়ালের পরিবারের লোকজন টের পেয়ে তারা ডাক-চিৎকার শুরু করেন। তাদের চিৎকার শুনে প্রতিবেশি ও যাত্রী নামিয়ে সবেমাত্র বাড়ি ফেরা প্রাইভেট কার চালক আব্দুল মান্নান তাৎক্ষণিক কার নিয়ে গরু বোঝাই পিকআপটিকে ধাওয়া করেন। একপর্যায়ে দক্ষিণ ধানুয়ার চাঁন বাড়িয়া এলাকায় পৌঁছলে পিকআপটিকে ওভারটেক করে প্রাইভেট কার চালক আব্দুল মান্নান রাস্তা ব্যারিকেট দেন। এসময় পিকআপটি প্রাইভেট কারটিকে সজোরে ধাক্কা দিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের পাশে ৩৩ কেভি লাইনের বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে নিচে পড়ে যায়। বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে পড়ে যাওয়ার ফলে সমগ্র উপজেলার বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এসময় প্রাইভেট কার চালক আব্দুল মান্নান আহত হন। তারপরও তার সহযোগিতায় ঘটনাস্থলে ইকবাল এবং ইসমাইল নামে দুই চোরকে আটক করে স্থানীয় জনতা। তবে চোরচক্রের অপর সদস্যরা পালিয়ে যায়। পরে আটক দুই চোরকে পুলিশে সোপর্দ করে। আহত আব্দুল মান্নান গুরুতর আহত অবস্থায় ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
এদিকে বুধবার বিকেলে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত স্বাভাবিক হয়নি ফরিদগঞ্জ ও হাইমচরের বিদ্যুৎ ব্যবস্থা।
আটকরা হলো- চাঁদপুর সদর উপজেলার আলিমপাড়ার অলী আহমদের ছেলে ইকবাল (২৫) ও হাজীগঞ্জ উপজেলার সুবিদপুর গ্রামের মৃত মিলন মিহিরের ছেলে ইসমাইল (৩০)। পালিয়ে যাওয়া চোরচক্রের সদস্যদের মধ্যে ফরিদগঞ্জ উপজেলার পিকআপ চালক সুমন ও তাদের সঙ্গীয় রাসেল, কালু, রনি, এরশাদসহ অজ্ঞাতনামা আরো কয়েকজন।
পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ঘটনাস্থল থেকে ৫টি গরু, চুরির কাজে ব্যবহৃত পিকআপ নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে।
এ ঘটনায় গোবিন্দপুর গ্রামের লোকমান হোসেন রাড়ী বাদী হয়ে ইসমাইলকে প্রধান আসামি করে ফরিদগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
ফরিদগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ শহীদ হোসেন ৫টি গরু ও চুরির কাজে ব্যবহৃত পিকআপ নিজেদের হেফাজতে নেয়া মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

১৩ জানুয়ারি, ২০২২।