ফরিদগঞ্জে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে মামলা

নারায়ন রবিদাস
ফরিদগঞ্জে তাসলিমা আক্তার (২৬) নামে এক গৃহবধূকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে বিষপাণে আত্মহত্যায় প্ররোচিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে গতকাল রোববার সন্ধ্যায় নিহত তাসলিমার পিতা আবুল বাসার বাদী হয়ে ফরিদগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। এর আগে ওই গৃহবধূ শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) কীটনাশক পান করে। পরে গুরুতর অসুস্থাবস্থায় তাকে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানেই রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) ভোরে সে মারা যায়। ঘটনাটি ফরিদগঞ্জ উপজেলার বালিথুবা পূর্ব ইউনিয়নের উত্তর রাজাপুর গ্রামে ঘটে।
তাসলিমা আক্তারের ভাই হাবিবুর রহমান ও রাসেল জানান, তার বোনের সাথে চাঁদপুর পৌর এলাকার বিষ্ণুদি গ্রামের মোবারক হোসেনের সাথে ৩ বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের ঘরে দেড় বছরের একটি ছেলে রয়েছে। মোবারক হোসেন ফরিদগঞ্জ উপজেলার চান্দ্রা বাজারের ঢাকা হোটেলে কাজ করার কারণে তারা বাজারের পাশেই ভাড়া ঘরে থাকতো। কিন্তু তাসলিমাকে প্রায়শই তার স্বামী ও শ্বশুর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। এজন্য সে বাবার বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেয়। কয়েকদিন আগে তাসলিমা বাজারে তার স্বামীর কাছে গেলে তাকে মারধর করে। সর্বশেষ শুক্রবার তাকে মুঠোফোনে অশ্লীল কথাবার্তা বলে তাকে বিষিয়ে তোলে। পরে ১১ সেপ্টেস্বর অভিমান করে তাসলিমা আক্তার কীটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। দ্রুত আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার মৃত্যুবরণ করে। পরে তার বাবা আবুল বাসার বাদী হয়ে স্বামী ও শ্বশুরের বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে রোববার সন্ধ্যায় লিখিত অভিযোগ করেন।
এ ব্যাপারে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদ হোসেন জানান, চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে পোস্টমর্টেমের জন্য প্রেরণ করেছে। অভিযোগটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১।