ফরিদগঞ্জে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা নতুন বইয়ের ঘ্রাণ পেলেও মাধ্যমিকে সংকট

 

নবী নোমান
করোনা ভাইরাসের কারণে প্রাইমারি পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের বই উৎসব বা নতুন বইয়ের ঘ্রাণ পাওয়া ঠেকাতে পারিনি। নানা সংকটের পরেও ফরিদগঞ্জে ২০২১ শিক্ষাবর্ষে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেন গুলোর ৪৯৮৬২ জন কোমলমতি শিক্ষার্থীদের জন্য নিজ নিজ বিদ্যালয় নতুন বই বিতরণ সম্পূর্ণ করেছে উপজেলা শিক্ষা অফিস। অপরদিকে করোনাসহ নানা ঝটিলতার কারণে চাহিদা অনুযায়ী বই সরবরাহ না হওয়ায় দারুণ সংকট দেখা দিয়েছে মাধ্যমিক পর্যায়। ফলে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা নতুন বই পেতে এ বছর কিছুটা সময় লাগবে।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, এই বছর প্রথম শ্রেণিতে, ৬০৪০ দ্বিতীয় শ্রেণিতে ৮৫২০ তৃতীয় শ্রেণিতে ৮৮৩২, চতুর্থ শ্রেণিতে ৮৯৩১,পঞ্চম শ্রেণিতে ৮৯৭৬টি বই কোমলমতি শিক্ষার্থী বই পাচ্ছে।
এ বিষয় উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান জানান, আমরা ৩০ ডিসেম্বর মধ্যে সকল প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনগুলোতে বই বিতরণ সম্পন্ন করেছি।
অন্যদিকে মাধ্যমিক পর্যায়ে বই সংকট তাই বই বিতরণ করা সম্পূর্ণ করতে পারেনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের একাডেমিক সুপারভাইজার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, আমরা ২০২১ শিক্ষাবর্ষে নতুন বই চাহিদা পাঠা হয়েছে ৩,৮৪,২৭০ কপি। কিন্তু বই পেয়েছি ৪০,২৬০ কপি। তার মধ্যে ষষ্ঠ শ্রেণিতে তিন বিষয়, সপ্তম শ্রেণিতে ৬ বিষয়, অষ্টম শ্রেণিতে ৬ বিষয় পেয়েছি। নবম শ্রেণিতে কোন বই এই পর্যন্ত আমাদের হাতে পৌঁছেনি।
অন্যদিকে মাদ্রাসার ইবতেদায়ী শাখার প্রথম থেকে চতুর্থ শ্রেণির নতুন বই সংকট নেই। পঞ্চম, ষষ্ঠ, নবম ও দাখিল শ্রেণির কোন বই আসেনি। তবে চাহিদা মোতাবেক সব বই আমরা অল্প সময় মধ্যে পেয়ে যাবো। করোনা ভাইরাসের কারণে ১ জানুয়ারি বই উৎসব ছাড়াই স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্ব-স্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়া হবে।
১ জানুয়ারি, ২০২১।