মৃত্যুর দুয়ারে কবির, আপনার সহযোগিতায় বাঁচবে প্রাণ

মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
নাক ও চোখ দিয়ে রক্ত ঝরছে পঁয়ত্রিশ বছর বয়সি কবির হোসেনের। আর ব্যাথার যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে হাসপাতালের বিছানায়। বর্তমানে সে রাজধানীর তেজগাঁও এলাকায় জাতীয় নাক, কান ও গলা ইন্সটিটিউটে চিকিৎসাধীন। অবনতি ছাড়া উন্নতির কোন লক্ষণ নেই তার।
করোনাভাইরাস সংক্রমণে সৃষ্ট জটিলতা এবং আর্থিক সমস্যার কারনে প্রয়োজনীয় উন্নত চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত মো. কবির হোসেন। যেন মৃত্যুর দুয়ারে দাঁড়িয়ে আছে সে। বিত্তবানদের সহযোগিতা পেলে হয়তো আরো কিছুদিন ধরণীর বুকে বেঁচে থাকবে।
কবির হোসেন হাজীগঞ্জ উপজেলার বড়কুল পূর্ব ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বড়কুল গ্রামের (রায়চোঁ) মৃত ছেরাজল হকের ছেলে। গত চার মাস যাবৎ তার নাক দিয়ে রক্ত ঝরছে। স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা করোনা হয়েছে। কিন্তু অবনতি ছাড়া উন্নতি হয়নি।
এর মধ্য কবিরের বাম চোখ বড় হয়ে যায়। যেন কোঠা থেকে চোখটি বেরিয়ে আসছে। সবশেষ গত এক সপ্তাহ আগে নাকের সাথে চোখ দিয়েও রক্ত বের হয়। এরপর তার অবস্থার অবনতি হলে রাজধানীর জাতীয় নাক, কান ও গলা ইন্সটিটিউটে ভর্তি করানো হয়।
বর্তমানে কবিরের সাথে হাসপাতালে তার মা ও বড় বোন রয়েছেন। তার উন্নত চিকিৎসায় আর্থিক সহযোগিতা চেয়ে বিত্তবান, প্রশাসন ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন বোন ফরিদা বেগম।
যারা আর্থিক সহযোগিতা করতে ইচ্ছুক, প্রয়োজনে তারা এই মোবাইল ০১৭১৯-১৮১৩৫৬ নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন। এছাড়া এই বিকাশ ০১৮৬২-১৭৭৩৩০ (পার্সোনাল) নম্বরে টাকা পাঠাতে পারবেন। আপনাদের সহযোগিতায় এবং উন্নত চিকিৎসার মাধ্যমে হয়তো আবারো সুস্থ হয়ে উঠবে কবির হোসেন।

২৬ জুন, ২০২০।