হাইমচর, চাঁদপুর সদর ও চাঁসক ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত

স্টাফ রিপোর্টার
হাইমচর উপজেলা, চাঁদপুর সদর উপজেলা ও চাঁদপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের নতুন কমিটির কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। অনুমোদনের মাত্র দুই দিনের মাথায় হাইমচর উপজেলা ও চাঁদপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ এবং ২৪ ঘণ্টার মাথায় সদর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটির কার্যক্রম স্থগিত করে কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগ।
বুধবার (২২ জুন) বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে। এদিন কেন্দ্রিয় নির্বাহী সংসদের প্যাডে জারি করা জেলা ছাত্রলীগের ঘোষিত কমিটির কার্যক্রম স্থগিত করে এই প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়।
বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক আনিত অভিযোগের ভিত্তিতে চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগ শাখা কর্তৃক ঘোষিত চাঁদপুর সদর, হাইমচর উপজেলা ও চাঁদপুর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত করা হলো।
জানা গেছে, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জহির উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক মো. সাদ্দাম হোসেন খান স্বাক্ষরিত মঙ্গলবার (২১ জুন) চাঁদপুর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের ৬ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। আগামি এক বছরের জন্য এ কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়। অনুমোদিত কমিটির সভাপতি মাহমুদুল হাসান সাদ্দাম, সহ-সভাপতি শাহিন আরাফাত ও ফয়সাল গাজী, সাধারণ সম্পাদক আল হেলাল ইনু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. রাব্বি খাঁন ও সাংগঠনিক সম্পাদক বেলাল হোসাইন। একই অনুমোদন পত্রে চাঁদপুর জেলা শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ওয়াসিম জমাদার ও কামরুজ্জামান প্রধানীয়ার নাম উল্লেখ করা হয়।
এর আগের দিন সোমবার (২০ জুন) হাইমচর উপজেলা ছাত্রলীগের ২১ সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি আগামি ৩ মাসের জন্য অনুমোদন দেওয়া হয়। এই কমিটি উপজেলা ছাত্রলীগের আওতাধীন সব সাংগঠনিক ইউনিট গঠন করে উপজেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনের প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য নির্দেশনা দেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জহির উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক মো. সাদ্দাম হোসেন খান।
হাইমচর উপজেলা ছাত্রলীগের অনুমোদিত কমিটির আহ্বায়ক হলেন মো. রবিউল হাসান রাজু পাটওয়ারী, যুগ্ম আহ্বায়ক মো. জাহিদ হোসাইন কোতয়াল, মো. সাইফুল ইসলাম সোহাগ, এমরান তালুকদার, মোজাম্মেল হোসেন হৃদয় জমাদার, আনোয়ার হোসেন ফাহিম, মো. ফজলে রাব্বি হাওলাদার, মো. সিয়াম গাজী ও মুসা পাটওয়ারী।
সদস্যরা হলেন- মো. রিয়াদ হোসেন, মো. ইমরান হোসেন, বাহাউদ্দিন হৃদয়, শেখ মো. আব্বাস উদ্দিন, মো. পলাশ আহম্মেদ ভূঁইয়া, শরীফ পাটওয়ারী, মোশারফ হোসেন নয়ন, ফুয়াদ পাটওয়ারী, শফিউল বাশার সিহান, হাসান রাব্বি, রিপন মিজি আরিফ ও সাঈদ হোসেন শাকিল। একই অনুমোদন পত্রে চাঁদপুর জেলা শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মো. তৌহিদুল ইসলাম গাজী সুজন ও মো. আল হাসান আরিফ হাওলাদারের নাম উল্লেখ করা হয়।
এদিকে একই দিনে চাঁদপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের ১১ সদস্যবিশিষ্ট আংশিক কমিটি আগামি এক বছরের জন্য অনুমোদন দেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জহির উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক মো. সাদ্দাম হোসেন খান। অনুমোদিত কমিটির সভাপতি হলেন- সোহেল হোসাইন বেপারী, সহ-সভাপতি সৈয়দ রাশেদুল হক মাহের, মাহবুবুর রহমান খান, মিজানুর রহমান ভূঁইয়া, জাহাঙ্গীর আলম রাব্বি ও মহিবুর রহমান মৃদুল, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সাইফ হোসাইন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান এমাদ হাশেদ ও রবিউল ইসলাম রবি, সাগংঠনিক সম্পাদক মো. রিয়াজুল ইসলাম ও বখতিয়ার রানা পাশা। একই অনুমোদন পত্রে চাঁদপুর জেলা শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সাব্বির আহমেদ মারুফের নাম উল্লেখ করা হয়।
কমিটির কার্যক্রম স্থগিত বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জহির উদ্দিন দৈনিক ইল্শেপাড়কে জানান, আমরা হাইমচর উপজেলায়, চাঁদপুর সদর উপজেলায় ও চাঁদপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের নিয়ে স্ব-স্ব উপজেলা ও সদরকারি কলেজে কমিটি গঠনের বিষয়ে একাধিকবার সভা করেছি। নেতা-কর্মীদের বায়োডাটা নিয়ে যাচাই-বাছাই করে যোগ্যদের দিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির একজন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই। শুধুতাই নয়, কমিটি গঠনের পর কারো বিরুদ্ধে কেউ অবস্থান নেওয়া তো দূরের কথা, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ও স্ব-স্ব এলাকায় কমিটির বিষয়ে নেতাকর্মীদের মাধ্য আনন্দের বন্যা বইতে দেখা যায়।
তিনি আরো বলেন, হাইমচর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করা হয়েছে প্রায় ১৮ বছর পর, চাঁদপুর সদর উপজেলায় ও চাঁদপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করা হয় প্রায় ১১ বছর পর। চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ এবং সাবেক ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দের মতামতের ভিত্তিতে এ কমিটিগুলো করা হয়েছে। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রিয় সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য কি কারণে কমিটির কার্যক্রম স্থগিত করেছে, আমরা এখনো কিছু জানি না।

২৩ জুন, ২০২২।