মনিরুজ্জামান মানিকের বিরুদ্ধে দ্রুত সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিচ্ছে বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার
লেভেল প্লেইং ফিল্ড না থাকা, ভোটে কারচুপি, দলীয় প্রভাব প্রয়োগ ও নানা অভিযোগে সারা দেশে আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন না বিএনপি। সারাদেশের মতো চাঁদপুর জেলা পরিষদে চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত সদস্য পদে কোন প্রার্থী দেয়নি বিএনপি।
তবে আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদর উপজেলা ১নং ওয়ার্ড থেকে সাধারণ সদস্য পদে হাতি মার্কায় অংশগ্রহণ করছেন সদর থানা বিএনপির সহ সভাপতি ও ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মৈসাদী ইউনিয়নের সদ্য বিদায়ী চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মানিক।
এ নিয়ে নেতাকর্মীদের মাঝে ও সোস্যাল মিডিয়ায় নিন্দার ঝড় বইছে। দলের সিদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে প্রার্থী হওয়া তারেক রহমান তথা বিএনপির হাই কমান্ডের সাথে তামাশা বলে মনে করছেন নেতাকর্মীরা।
নেতাকর্মীরা জানায়, সদর থানা বিএনপির সহ-সভাপতির মতো পদ বহন করে ও ধানের শীষের প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান হওয়া ব্যাক্তি কিভাবে এই প্রহসনের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছে। এই লোকটি চেয়ারম্যান থাকাকালীন সময়ে দলের বিরুদ্ধে গিয়ে অনেক বিতর্কিত কাজ করেছে। যারা দলের সাথে এ ধরনের কাজ করে তাদেরকে দল থেকে বহিস্কার করা উচিত।
এ ব্যাপারে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. সলিম উল্ল্যাহ সেলিম জানান, ওনি যে প্রার্থী হয়েছেন আপনাদের মাধ্যমে জানতে পেরেছি। দলের সিদ্ধান্তের বাইরে যে যাবে সে যেই হোক কোন ছাড় দেয়া হবে না। খুব দ্রুত তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি শাহজালাল মিশন জানান, বিষয়টি জেনেছি। দলের হাই কমান্ডের সাথে কথা বলে সাংগঠনিক ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।
সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. জাহাঙ্গীর হোসেন খান বলেন, দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে দলে থাকার কোন সুযোগ নেই। অচিরেই সাংগঠনিক ধারায় সাংগঠনিক ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২।