শেখ কামাল বেঁচে থাকলে দেশকে অনেক কিছু দিতে পারতেন

মতলব উত্তরে শেখ কামালের ৭১তম জন্মদিনের অনুষ্ঠানে নুরুল আমিন রুহুল এমপি

মনিরুল ইসলাম মনির

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় ছেলে, ক্রীড়াবিদ ও সংগঠক মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামালের ৭১তম জন্মদিন উপলক্ষে মতলব উত্তর উপজেলার ছেংগারচর পৌর আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে গত ৬ আগস্ট সকালে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর-২ (মতলব উত্তর-মতলব দক্ষিণ) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ অ্যাডভোকেট মো. নুরুল আমিন রুহুল।

অ্যাড. নুরুল আমিন রুহুল বলেছেন, শেখ কামাল বেঁচে থাকলে দেশকে অনেক কিছু দিতে পারতেন। তিনি তাঁর বহুমুখী প্রতিভা দিয়ে দেশের রাজনীতি, সংস্কৃতি ও ক্রীড়াঙ্গনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে গেছে।

সাংসদ রুহুল বলেন, কামালের বহুমুখী প্রতিভা ছিল। একজনের মধ্যে এত গুণ ও প্রতিভার সমাহার সত্যিই বিরল।

তিনি আরও বলেন, কামাল একদিকে যেমন ছিল একজন ক্রীড়া সংগঠক, ঠিক তেমনি অপর দিকে সংস্কৃতিক অঙ্গনেও ছিল তার বহুমুখী প্রতিভা। পাশাপাশি, রাজনীতিতেও সে দক্ষতা ও যোগ্যতার ছাপ রেখে গেছে।

রাজনীতি ও আন্দোলনে শেখ কামালের অবদানের কথা উল্লেখ করে নুরুল আমিন রুহুল বলেন, ছয় দফা দাবির সময় থেকে প্রতিটি সংগ্রাম ও আন্দোলনে কামাল সক্রিয় ছিল। আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলায় জাতির পিতা গ্রেপ্তার হলে কামাল সে সময় রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

তিনি বলেন, যথাযথ প্রশিক্ষণ শেষে মহান মুক্তিযুদ্ধে কামাল সক্রিয়ভাবে অংশ নেয়।

ক্রীড়াঙ্গনে শেখ কামালের অবদান সম্পর্কে সংসদ সদস্য রুহুল বলেন, ধানমন্ডিতে খেলাধুলার আয়োজন এবং আবাহনী ক্লাব প্রতিষ্ঠা ক্রীড়াঙ্গনে কামালের সবচেয়ে বড় অবদান। মুক্তিযুদ্ধের পর কামাল আবাহনীকে আরও শক্তিশালী করে।

ছেংগারচর পৌর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান কাইউম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রতন ফরাজীর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক আলহাজ লায়ন আরিফ উল্লাহ সরকার, মতলব উত্তর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি দেওয়ান জহির, পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সরকার আবুল কালাম আজাদ, মতলব উত্তর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট মহসিন মিয়া মানিক, পৌর যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জামান সরকার, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আবু হানিফ অভি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মতলব উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দিন মৃধা, চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আল মাহমুদ টিটু মোল্লা, অ্যাডভোকেট সেলিম মিয়া, জহিরুল ইসলাম চৌধুরী, কেন্দ্রিয় যুবলীগ নেতা মিজানুর রহমান মিঠু, মতলব উত্তর উপজেলা যুবলীগের সদস্য আশরাফুল আলম মিলন, আওয়ামী লীগ নেতা মুসলিম খান, সাবেক কাউন্সিলর আবু জাফর সরকার ডালিম, পৌর যুবলীগের সভাপতি আবুল হোসেন ফরাজী, যুবলীগ নেতা ওমর খান, কাউন্সিলর শাহাদাত হোসেন খোকন, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহবুব আলম বাবু, ছাত্রলীগ নেতা আবির হায়াত সিহাব প্রমুখ।

০৯ আগস্ট, ২০২০।