হাজীগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে আটক ১

ফেসবুকে গুজব ছড়ানোয়

মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
হাজীগঞ্জে সরকারের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গুজব ছড়ানো এবং ধর্মীয় সম্প্রীতি নষ্ট করে আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করার অপচেষ্টার দায়ে মো. জুলহাস হোসেন (১৮) নামের একজনকে আটক করেছে র‌্যাব-১১।
গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার (৫ জুন) দিবাগত রাতে র‌্যাব-১১ (কুমিল্লা) এর অভিযানে জুলহাসকে বাড়ি থেকে আটক করা হয়। আটক জুলহাস হাজীগঞ্জ উপজেলার গন্ধর্ব্যপুর উত্তর ইউনিয়নের মৈশামুড়া গ্রামের ইমান হোসেনের ছেলে। বর্তমানে জুলহাস তার বাবা-মায়ের সাথে একই ইউনিয়নের মৈশামুড়া এলাকার সর্বতআরা গ্রামের নতুন বাড়ি প্রকাশ গোলার বা’দের বাড়িতে বসবাস করে।
র‌্যাব-১১ সূত্রে জানা গেছে, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১ এর একটি আভিযানিক দল ৫ জুন (শনিবার) গভীর রাতে মৈশামুুুড়া এলাকায় সর্বতআরা গ্রামের নতুন বাড়ি প্রকাশ গোলার বা’দের বাড়িতে একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্মীয় সম্প্রীতি নষ্ট করার অপচেষ্টা এবং সরকারের বিরুদ্ধে গুজব ছড়িয়ে দেশের আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করার অপচেষ্টা চালানোর দায়ে জুলহাস হোসেনকে আটক করা হয়।
এ সময় তার হেফাজত হতে ১টি স্মার্টফোন (লাভা এন্ড্রয়েড ফোন) উদ্ধার করা হয়। ঐ মোবাইল ফোনে আটক আসামি মো. জুলহাস হোসেন ৯ থেকে ১০টি ফেসবুক আইডি পরিচালনা করে। এছাড়া বেশ কয়েকটি ফেসবুক পেজের এ্যাডমিন/মডারেটর সে। আটক আসামি মো. জুলহাস হোসেন ‘মা ন ব স মা জ’ নামের একটি ফেসবুক পেজের এ্যাডমিন/মডারেটর। ঐ ফেসবুক পেজ’র আগের নাম ছিল ‘জা-মা-য়া-ত’। এই ফেসবুুুক পেজে হতে বিভিন্ন সময় ধর্মীয় সম্প্রীতি নষ্ট করে দেশকে অস্থীতিশীল করার জন্য বিভিন্ন উস্কানিমূলক পোস্ট দেয়া হয়।
এছাড়া তার অন্যান্য ফেসবুক পেজ থেকেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্মীয় সম্প্রীতি নষ্ট করার অপচেষ্টা চালানোসহ সরকার সম্পর্কে বিভিন্ন মিথ্যা, বিভ্রান্তিকর গুজব ও মানহানিকর অপপ্রচার চালানোর প্রমাণ পাওয়া যায়।
আটক আসামি জুলহাস জিজ্ঞাসাবাদ ও প্রাথমিক অনুসন্ধানে উপরে বর্ণিত অপরাধ করেছে বলে র‌্যাবের কাছে স্বীকার করে। তার বিরুদ্ধে হাজীগঞ্জ থানায় আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

০৭ জুন, ২০২০।