কচুয়ায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ২৫টি বসতঘর পুড়ে ছাই

১১ পরিবার নিঃস্ব

কচুয়া ব্যুরো
কচুয়া উপজেলার কাদলা ইউনিয়নের দোঘর মুন্সী বাড়িতে ভয়াবহ অগ্নিকাÐে সব আসবাবপত্র ও মালামালসহ কমপক্ষে ২৫টি ছোট-বড় ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নবীর ও মোশরাফ হোসেনের ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। পর্যায়ক্রমে আগুনের লেলিহান শিখা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে অন্যান্য ঘরগুলোতে আগুন লেগে অন্তঃত ২৫টি ঘর পুড়ে যায়।
খবর পেয়ে কচুয়া ও পাশর্^বর্তী হাজীগঞ্জের ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট ও স্থানীয়রাসহ প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। ততোক্ষণে বসতঘরে থাকা নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও আসবাবপত্র পুড়ে প্রায় দেড় কোটি টাকা ক্ষতিসাধন হয়েছে। খবর পেয়ে ওইদিন রাতে কচুয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হাসান, ইউপি চেয়ারম্যান নুরে আলম রিহাত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং তাদের খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়।
আগুন লাগার পরপরই স্থানীয় লোকজন এসে নারী, বৃদ্ধ ও শিশুদের উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে রেখে দেয়। অগ্নিকান্ডে রফিকুল ইসলাম মাস্টার, নবীর হোসেন, আজিজুল হক, হোসেন মুন্সী, করিম, সাখাওয়াত, আব্দুর রশিদ, বিল্লাল হোসেন, ইয়াছিন, জাসেদ মুন্সীর বসত ঘর, গোয়াল ঘর ও রান্না ঘরসহ ছোট-বড় কমপক্ষে ২৫টি ঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়।
১১টি পরিবারের লোকজন এখন নিঃস্ব হয়ে গেছে। তাদের খাবার ও বস্ত্র নেই। এখন তারা খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছেন।
উপজেলা ফায়ার স্টেশন অফিসার মাহতাব মন্ডল বলেন, অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আমরা দেড় ঘণ্টাব্যাপী চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হই। এতে তাদের ব্যাপক ক্ষতিসাধন হয়। এদিকে স্থানীয়দের উদ্যোগে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে অর্থ, বস্ত্র ও খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

২২ জানুয়ারি, ২০২৩।