কুমিল্লা থেকে চুরিকৃত ২০ টন পোল্ট্রি ফিড হাজীগঞ্জ থেকে উদ্ধার

তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ট্রাক উদ্ধারসহ চোর গ্রেফতার

মোহাম্মদ হাবীব উল্যাহ্
কুমিল্লা থেকে ট্রাকসহ চুরিকৃত ২০ টন পোল্ট্রি ফিড (৪১৫ বস্তা মুরগি ও মাছের খাবার) হাজীগঞ্জ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (৩০ জুন) দুপুরে উপজেলার হাটিলা পূর্ব ইউনিয়নের বলিয়া গ্রামের হাজীগঞ্জ-কচুয়া-গৌরিপুর সড়কের বটতলা নামক স্থানে অবস্থিত একটি গোডাউন থেকে চুরিকৃত ৩৯৬ বস্তা পোল্ট্রি ফিড হাজীগঞ্জ থানা পুলিশের সহযোগিতায় উদ্ধার করে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানা পুলিশ।
এর আগে তথ্য প্রযুক্তির সহযোগিতায় চুরিকৃত ট্রাক উদ্ধার এবং ইমান হোসেন (২২) নামের এক চোরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার দেয়া তথ্য মতেই চুরিকৃত পোল্ট্রি ফিড উদ্ধার করা হয়। বর্তমানে সে জেলহাজতে রয়েছে। ইমান হোসেন ওই ইউনিয়নের বলিয়া গ্রামের চকিদার বাড়ির মিজানুর রহমানের ছেলে। সে ট্রাক চুরির সময় চালকের সহযোগী হিসেবে ছিলো। আর ট্রাকের চালক চোর ছিলেন একই গ্রামের মনির হোসেনের ছেলে সাগর হোসেন (২৫)।
অভিযোগ ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ জুন মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া বাজারস্থ কাজী ফার্মস লিমিটিডের গজারিয়া ফিড মিল থেকে ২০টন পোল্ট্রি ফিড (৪১৫ বস্তা মুরগি ও মাছের খাবার) নিয়ে একটি ভাড়াকৃত ট্রাক, চট্টগ্রাম মিরস-সরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ বাজারের মেসার্স ইমন পোল্ট্রির উদ্দেশে যাত্রা করে। ওই দিন রাত পৌনে বারটায় ট্রাকের চালক ও হেলপার রাতের খাবারের জন্য কুমিল্লা জেলার পদুয়ার বাজার বিশ^ রোডস্থ ছন্দু-১ হোটেলের সামনে ট্রাকটি থামায়।
এরপর খাওয়া-দাওয়া শেষে হোটেল থেকে বের হয়ে চালক ও হেলপার দেখেন তাদের ট্রাকটি নেই। তারপর বিষয়টি ট্রাকের মালিক বাবলু মজুমদারকে জানালে তিনিসহ ঘটনাস্থলসহ আশ-পাশের এলাকায় খোঁজা-খুঁজি করেন। কিন্তু ঘটনার চারদিন পার হলেও পোল্ট্রি ফিড বোঝাইকৃত ট্রাকটি কোথাও না পেয়ে গত ১৪ জুন বাবলু মজুমদার কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ (মামলা নং- ২১) দায়ের করেন।
ট্রাকে আইপিএস ট্র্যাকিং থাকায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানার উপ-পরিদর্শক খালেদুল বাহার তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ট্রাকটি পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করেন। এরপর ট্রাকসহ পোল্ট্রি ফিড চুরির ঘটনায় দুই চোরকে চিহ্নিত করে পুলিশ। পরবর্তীতে হাজীগঞ্জ থানা পুলিশের সহযোগিতায় চোর ইমান হোসেনকে হাজীগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানা পুলিশ। সে মালামালসহ ট্রাক চুরির সময় হেলপার হিসেবে কাজ করেছিলো।
অপর চোর একই গ্রামের সাগর হোসেন ট্রাকের চালক হিসেবে কাজ করে। বর্তমানে সে পলাতক রয়েছে। পরবর্তীতে গ্রেফতারকৃত ইমান হোসেনের তথ্য অনুযায়ী হাজীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মো. জয়নাল আবেদীন-২ সহ বলিয়া গ্রামের হাজীগঞ্জ-কচুয়া-গৌরিপুর সড়কের বটতলা নামক স্থানে অবস্থিত একটি গোডাউন থেকে চুরিকৃত ৩৯৬ বস্তা পোল্ট্রি ফিড উদ্ধার করে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা খালেদুল বাহার।
এদিকে পুলিশের উপস্থিতিতে উদ্ধারকৃত মালামাল নিয়ে যায় চুরিকৃত মালামালের স্বত্বাধিকারী। এ সময় হাজীগঞ্জ পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কাজী মনির হোসেন, পোল্ট্রি ফিডের ক্রেতা ও চট্টগ্রামের মিরেরসরাই জোরারগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী, মেসার্স ইমন পোল্ট্রির স্বত্বাধিকারী মো. নূর ইসলামসহ ট্রাকের মালিক পক্ষের লোকজন, হাজীগঞ্জ থানা ও কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানা পুলিশ এবং হাজীগঞ্জের জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানার উপ-পরিদর্শক খালেদুল বাহার জানান, উদ্ধারকৃত ৩৯৬ বস্তা মালামাল (পোল্ট্রি ফিড) ক্রয়দাতা ইমন পোল্ট্রি ফিডের স্বত্বাধিকারীকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং মামলার অপর আসামি সাগরকে গ্রেফতারের চেষ্টা ও চুরিকৃত বাকি ১৯ বস্তা মালামাল উদ্ধারের চেষ্টা অব্যাহৃত আছে। তিনি বলেন, এই ঘটনায় আরো কেউ জড়িত আছে কিনা, তা তদন্তপূর্বক জানা যাবে।

০১ জুলাই, ২০২১।