এমরান হোসেন মিয়ামুক্ত জাতীয় পার্টি চায় নেতারা

গণতন্ত্র দিবসে চাঁদপুরে জাতীয় পার্টির আলোচনা সভা

স্টাফ রিপোর্টার
চাঁদপুরে জাতীয় পার্টির গণতন্ত্র দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) বিকেলে বিপণীবাগস্থ পার্টি হাউজে সভায় সভাপতিত্ব করেন পৌর জাতীয় পার্টির সভাপতি আলহাজ সিরাজুল ইসলাম সিরু মিজি।
পৌর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. মনিরুল ইসলাম খানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মোহাম্মদ মহসীন খান, জেলা জাতীয় পার্টির সাবেক দপ্তর সম্পাদক শাহাজাহান মাতাব্বর, জেলা কৃষক পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম দর্জি, চাঁদপুর জেলা যুব সংহতির আহ্বায়ক হাজী গোলাম মোস্তফা নিঝুম পাটওয়ারী, যুগ্ম-আহ্বায়ক মো. নাজমুল গাজী, কলেজ ছাত্র সমাজের সভাপতি আরিফুল ইসলাম, ২নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সভাপতি সেন্টু বেপারী, ৩নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সভাপতি মিজানুর রহমান গাজী, ৬নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সভাপতি আবুল হোসেন মিজি, ৭নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম, ৯নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সভাপতি নূরুজ্জামান কালু, ১৩নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত সাধারণসম্পাদক শাহাজাহান শাজু, সাংগঠনিক আব্দুর রশিদ গাজী, ১১নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক বাহা উদ্দিন গাজী, ১৪নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি রেজ্জাক গাজী, ১৫নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বাচ্চু মোল্লা প্রমুখ।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন কলেজ ছাত্র সমাজের সভাপতি আরিফুল ইসলাম।
এসময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রিয় ছাত্র সমাজের সাবেক নেতা মো. শরীফ হোসেন পাটওয়ারী, সদর যুব সংহতির আহ্বায়ক কাজী রফিকুল ইসলাম চান্দু, সদস্য সচিব মো হারুন গাজী, ১২নং ওয়ার্ড জাতীয় পার্টির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. সেলিম খানসহ আরো অনেকে।
বক্তারা বলেন, চাঁদপুরের জাতীয় পার্টি মুক্তি পেতে চায়। আমরা দালালমুক্ত জাতীয় পার্টি চাই। এমরান হোসেন মিয়া তার ব্যক্তিগত ইগুর কারণে জাতীয় পার্টি ও যুব সংহতিকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। তার ব্যক্তিগত এজেন্ডা বাস্তবায়ন করার জন্য তার লোকদিয়ে কমিটি করছে। আমরা এমরান হোসেন মিয়া মুক্ত জাতীয় পার্টি চাই। এমরান মুক্ত চাঁদপুর গড়তে আমাদের যা যা করণীয় তা করতে প্রস্তুত রয়েছি। চাঁদপুরের জাতীয় পার্টি ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী। এমরান মিয়ার কারণে তাতে ভাঙন ধরেছে। আমরা চাঁদপুরে সুষ্ঠু জাতীয় পার্টির রাজনীতি চাই।
বক্তারা আরো বলেন, জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে ৩ মাসের জন্যে। অথচ এ আহ্বায়ক কমিটি প্রায় ৪ বছর অতিবাহিত হয়েছে। যেহেতু জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে গেছে, তাতে বলা যায় বর্তমান জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক কমিটি অবৈধ। তাহলে অবৈধ কমিটি কীভাবে চাঁদপুরে কমিটি ঘোষণা করে?
১১ নভেম্বর, ২০২০।