ফরিদগঞ্জে বাসরঘরে নববধূর ছুরিকাঘাতে বর আহত!


ফরিদগঞ্জ ব্যুরো
ফরিদগঞ্জে বাসরঘরে নববধূর ছুরিকাঘাতে বর গুরুতর আহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার গভীর রাতে উপজেলার গুপ্টি পশ্চিম ইউনিয়নের লাউতলী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় বর দেলোয়ার বর্তমানে কুমিল্লার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলেও বর ও নববধূর পক্ষে কাউকে খুঁজে পায়নি।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পূর্ব লাউতলী গ্রামের ছিডু মিজির বাড়ির মৃত হারুনুর রশীদের ছেলে দেলোয়ার হোসেনের সাথে একই উপজেলার চরমান্দারী ভূঁইয়া বাড়ির ফিরোজ আলমের মেয়ে শ্যামলী আক্তারের সাথে ২৫ জানুয়ারি পারিবারিকভাবে ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক বিয়ে হয়।
ওই দিন গভীর রাত ২টার দিকে নব দম্পতির বাসরঘর থেকে বর দেলোয়ার হোসেনের আর্তচিৎকার শুনে তার স্বজনরা ঘরে ঢুকে তাকে রক্তাক্ত ও গুরুতর আহত অবস্থায় দেখতে পায়। দ্রুত তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কুমিল্লায় নিয়ে যায়। বর্তমানে দেলোয়ার হোসেন কুমিল্লার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে তার স্বজনরা জানান।
স্থানীয় লোকজন জানায়, নববধূ শ্যামলী আক্তার তার স্বামী দেলোয়ার হোসেনকে ছুরিকাঘাত করেছে তাদের ধারণা।
বর দেলোয়ারের বোন রুনা বেগম জানায়, ভাই দেলোয়ারের চিৎকার শুনে বাসর ঘরে ঢুকে ভাইকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পান। কিভাবে সে আহত হয়েছে তা জানেন না তিনি।
এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, বাসর ঘর এবং বাইরে বউ ভাতের জন্য তৈরিকৃত প্যান্ডেল এবড়ো থেবড়ো অবস্থায় পড়ে রয়েছে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য মাসুদ আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আমি রাতেই ঘটনাটি শুনেছি। ঘটনার পর পর আহত দেলোয়ারকে হাসপাতালে নিয়ে যায় তার স্বজনরা। এ ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে একটি চক্র উঠে পড়ে লেগেছে।
এ ব্যাপারে ফরিদগঞ্জ থানার ইনচার্জ মোহাম্মদ হারুনুর রশীদ চৌধুরী জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। তবে অদ্যাবধি কোন পক্ষই থানায় অভিযোগ করেনি।