কচুয়ায় ব্যবসায়ীকে ডেকে নিয়ে গলা কেটে হত্যা

rbt

স্টাফ রিপোর্টার
কচুয়ায় পৌর বাজারে অবস্থিত ইকরা ভ্যারাইটিজ স্টোরের স্বত্বাধিকারী আবুল বাশার (৩৮) কে ডেকে পাওনা টাকা দিবে বলে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকারী প্রধান আসামি ছালেহ মুসাকে কুমিল্লায় ভারতীয় সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে গ্রেফতার করে কচুয়া থানা পুলিশ।
সোমবার (৪ এপ্রিল) ভোরে চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায়ের দিক-নির্দেশনায় কচুয়া অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ কর্মকর্তা ডিজিটাল টেকনোলজী ব্যবহার করে হত্যাকারী ছালেহ মুসার অবস্থান সনাক্ত করে অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে। গতকালই হত্যাকারী ছালেহ মুসাকে চাঁদপুর আদালতে প্রেরণ করে।
পুলিশ সূত্রে হত্যা সম্পর্কে জানা গেছে, পৌর বাজারে অবস্থিত ইকরা ভ্যারাইটিজ স্টোরের স্বত্বাধিকারী আবুল বাশার পার্শ¦বর্তী মাছের আড়ৎদার হত্যাকারী ছালেহ মুসার কাছে ১ লাখ ৮৬ হাজার টাকা পাওনা ছিল। গত শনিবার পাওনা টাকা ফেরত চাইতে গেলে দু’জনের সাথে তর্ক-বিতর্ক হয়। এর রেশ ধরে হত্যাকারী ব্যবসায়ী নিহত বাশারকে টাকা দিবে বলে কচুয়া ট্রমা হসপিটালের সামনে থেকে তার মোটরসাইকেলে করে কচুয়া বিশ্বরোড অবস্থিত জমজম মাছের আড়তের গোডাউনে নিয়ে রুমের তালা বন্দ করে বাশারের গলা কেটে হত্যা করে লাশ বস্তাবন্দী করে মাছের ড্রামে করে পার্শ্ববর্তী দাউদকান্দি উপজেলার রায়পুর এলাকায় রেখে আসে বলে পুলিশের কাছে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে। পরদিন রোববার দাউদকান্দি থানা পুলিশ ব্যবসায়ী বাশারের লাশ উদ্ধার করে কুমিল্লায় মর্গে প্রেরণ করে।
এ বিষয়ে চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায় বলেন, কচুয়া উপজেলার পৌর বাজারের ব্যবসায়ী বাশার পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ায় হত্যা করেছে বলে স্বীকারোক্তি পাওয়া গেছে।
চাঁদপুর পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় তথ্য ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে দ্রুত বিষয়টি আমলে নিয়ে ঘটনা তদন্ত করে হত্যাকারীর অবস্থান সনাক্ত করে হত্যাকারী ছালেহ মুসাকে ভারতীয় সীমান্তবর্তী কুমিল্লার বিবির বাজার এলাকা থেকে পুলিশ গ্রেফতার করে।

০৫ এপ্রিল, ২০২২।